‘ভগবান মুখ তুলে চেয়েছেন’, নদীতে ভেসে আসা ৬০ কেজি ওজনের বিরল তেলে ভোলা মাছ কপাল ফেরাল বিধবা বৃদ্ধার

অনেকটা লটারি পাওয়ার মতো। অভাবী এক মৎস্যজীবীর প্রতিদিন মীন ধরে চলে তার সংসার। কিন্তু সমুদ্রে ভেসে আসা একটা বিরল প্রজাতির তেলে ভোলা মাছই বদলে দিলো তার জীবনের ছন্দ।

‘ভগবান মুখ তুলে চেয়েছেন’, নদীতে ভেসে আসা ৬০ কেজি ওজনের বিরল তেলে ভোলা মাছ কপাল ফেরাল বিধবা বৃদ্ধার
সাগরের চক ফুল ডুবি গ্রামের গরীব বিধবা ৫৫ বছরের পুষ্প রানী কর। ৩৫ বছর আগে তার স্বামী শ্রীপতি মারা যায়। কোন ছেলেপুলে নেই। স্বামী মারা যাওয়ার পর তিনি আর বিয়ে করেন নি। সাগরের চক ফুলডুবি সংলগ্ন হুগলি নদীর পাড়ে ছোট্ট একটা কুড়েঘরে । দিন আনি দিন খায় । প্রতিদিন ভোরে যেতে হয় নদীতে মীন ধরতে। সেই মীন বিক্রি করে সামান্য কিছু রোজগার। তা দিয়েই বাজার থেকে খাদ্যসামগ্রীতে কিনে আনলে তবেই চলে পেট । পেটের টানে বিপদসংকুল নদী তাকে যেতেই হয় মীন ধরতে।

‘ভগবান মুখ তুলে চেয়েছেন’, নদীতে ভেসে আসা ৬০ কেজি ওজনের বিরল তেলে ভোলা মাছ কপাল ফেরাল বিধবা বৃদ্ধার
অন্যান্য দিনের মতোই সোমবার ভোরে মীন ধরার জন্য নদীতে জাল পেতেছিলেন তিনি। হঠাৎ টি দেখতে পান নদীতে বড় কিছু একটা ভেসে আসছে। একটু কাছাকাছি আসতেই তিনি দেখতে পান একটা বিশাল বড় মাছ। বিপদের ভয় না করে তিনি নদীতে নেমে পড়েন। তারপর নিজের পরনের শাড়ি খুলে সেই মাছটিকে জড়িয়ে নিয়ে টানতে টানতে পাড়ের কাছে নিয়ে আসেন।

‘ভগবান মুখ তুলে চেয়েছেন’, নদীতে ভেসে আসা ৬০ কেজি ওজনের বিরল তেলে ভোলা মাছ কপাল ফেরাল বিধবা বৃদ্ধার
নদীর পাড়ে দাড়িয়ে থাকা আশপাশের পড়শিরা এসে জমা হয়। তাদের সাহায্যে সেই মাছটিকে পাড়ে তোলা হয়। মাছটির ওজন ৬০ কেজি। খবর যায় মাছের আড়তে। আড়তে মাছটির বাজার মূল্য এসে দাড়ায় ৩ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা।

‘ভগবান মুখ তুলে চেয়েছেন’, নদীতে ভেসে আসা ৬০ কেজি ওজনের বিরল তেলে ভোলা মাছ কপাল ফেরাল বিধবা বৃদ্ধার
জলভরা চোখে পুষ্প জানান, আমি অসহায় গরীব। আমার কেউ নেই। হঠাৎ করে সমুদ্রে ভেসে আসা কে মাছ বিক্রি করে এত টাকা পাবো ভাবতে পারিনি। এটা আমার কাছে স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে। সবই ভগবানের আশীর্বাদ। ভগবান হয়তো আমার দিকে মুখ তুলেছেন। (ছবি ও প্রতিবেদন- জয়দীপ হালদার)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *