একদিনে রেকর্ড পরিমাণে কমলো স্বর্ণের দাম দেখেনিন আজকের বাজার মূল্য

অস্বাভাবিকভাবে দরপতন হয়েছে সোনার বাজারে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে সোনার মূল্য হ্রাস পেয়েছে ৪ শতাংশ এবং রুপার মূল্য হ্রাস পেয়ছে ১৪ শতাংশ!

আন্তর্জাতিক বাজারে হুট করেই কমতে শুরু করেছে সোনার মূল্য। গত এক সপ্তাহের মধ্যে কয়েক দফা কমেছে এই ধাতবের মূল্য। ঠিক কী কারনে এমন দরপতনের দিকে যাচ্ছে সোনার বাজার? বাজার বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক সুদের হার কমিয়ে দেয়া এবং সামনে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচন হবার কারনেই এমন দরপতন ঘটেছে সোনার।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে বিশ্ব বাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম কমেছে ৭.৯৯ ডলার বা দশমিক ৪৩ শতাংশ। ফলে গত সপ্তাহের পুরো হিসেব করলে দেখা যায় বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম পড়ে গেছে ৪ দশমিক ৬০ শতাংশ। যা মাসের ব্যবধানে গিয়ে ডারায় ৪ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

মহামারী করোনা ভাইয়ারাসের কারনে বছরের শুরু দিকেই বিশ্ব বাজারে চড়া হতে থাকে সোনার মূল্য। যার প্রভাব পরে বাংলাদেশের বাজারেও। গত ৬ আগস্ট দেশের বাজারে প্রতি ভরি ২২ ক্যারেট সোনার সর্বোচ্চ মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল ৭৭ হাজার ২১৬ টাকা। তবে এরপর ধীরে ধীরে কমতে থাকে দেশের বাজারে সোনার মূল্য।

চলতি মাসের শুরুর দিকে দুই দফা সোনার মূল্য বৃদ্ধি পেলেও গত সেপ্টেম্বর এ দেশের বাজারে কমানো হয়েছে সোনার মূল্য। ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণের দাম দুই হাজার ৪৪৯ টাকা কমিয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে ৭৪ হাজার ৮ টাকা। ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ভরি ৭০ হাজার ৮৫৯ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ভরি ৬২ হাজার ১১১ টাকা ও সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণ ৫১ হাজার ৭৮৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল।

সোনার এই দরপতনের অবস্থা কতদিন পর্যন্ত বজায় থাকবে সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত করে কিছুই বলতে পারছেন না বাজার বিশ্লেষকরা। যেহেতু করোনা কাটিয়ে বিশ্বের অর্থনীতি ঘুরে দাড়াতে শুরু করেছে তাই সহসাই হয়ত খুব বেশি উর্ধ্বমুখি হবে না সোনার বাজার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *