কেরানির সুন্দরী স্ত্রী’কে নিয়ে প্রধান শিক্ষক উধাও!

ফরিদপুরের মধুখালি উপজে’লার এক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তার বিদ্যালয়ের অফিস সহকারীর (কেরানি) স্ত্রী’কে নিয়ে উধাও হয়েছেন বলে জানা গেছে।

ওই প্রধান শিক্ষকের নাম মো. শাহ’জাহান মৃধা। তার বাড়ি বোয়ালমা’রী উপজে’লার কাদিরদী গ্রামে। তিনি বর্তমানে মধুখালি উপজে’লাধীন কালাপোহা গ্রামের মীরের কাপাষাটিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্ম’রত।

তিনি বর্তমান কর্মস্থল ছেড়ে বোয়ালমা’রী উপজে’লার কাদিরদী গ্রামে অবস্থিত ‘কাদিরদী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়’এর প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদে নিয়োগ পেতে চেষ্টা করছেন। এজন্য পরিচালনা পর্ষদ ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে ম্যানেজ করেছেন বলে সূত্রটি জানায়।

কাদিরদী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের একাধিক অ’ভিভাবক ‘বিতর্কিত’ ওই শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক হিসেবে দেখতে চান না বলে সাংবাদিকদের জানান।

স্থানীয় অধিবাসী বুলবুল শেখ বলেন, ‘মধুখালি উপজে’লার মীরের কাপাষাটিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী ময়েনউদ্দিন মোল্যা মোহনের স্ত্রী’ ও দুই সন্তানের জননী মমতাজ মোহনের সঙ্গে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহ’জাহান মৃধার কিছুদিন ধরে প্রে’মের স’ম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রধান শিক্ষকের বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে ওই অফিস সহকারীর বাড়ি। এই কারণে ওই প্রধান শিক্ষক বিভিন্ন অজুহাতে অফিস সহকারীর বাড়িতে যেতেন। এক পর্যায়ে প্রে’মের স’ম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং গত ২৭ সেপ্টেম্বর প্রধান শিক্ষক ওই মহিলাকে নিয়ে উধাও হন।’

অফিস সহকারী ময়েনউদ্দিন মোল্যা বলেন, ‘তার স্ত্রী’ ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে নি’খোঁজ। এজন্য ২৯ সেপ্টেম্বর মধুখালি থা’নায় জিডি করেছি।’

প্রধান শিক্ষক
এ ব্যাপারে অ’ভিযু’ক্ত প্রধান শিক্ষক মো. শাহ’জাহান মৃধা বলেন, ‘আমি একটু ব্যস্ত আছি। আমা’র আমা’র মা অ’সুস্থ। আমি এক ঘন্টা পরে ফোন দিচ্ছি। আজকে নিউজটা করার দরকার নাই।’ পরে এক ঘন্টা পরে ফোন দিলে তিনি আর কল রিসিভ করেননি।

মধুখালী থা’নার অফিসার ইনচার্জ মো. আমিনুল ইস’লাম জানান, ‘অফিস সহকারী ময়েন উদ্দিন মোল্যা মোহন স্ত্রী’ নি’খোঁজের সাধারণ ডায়েরী করেছে, বিষয়টি ত’দন্ত করে দেখা হচ্ছে। খোঁজ পেলে উ’দ্ধার করা হবে।’

এপ্রসঙ্গে মধুখালী মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মক’র্তা পারমিস সুলতানা জানান, বিষয়টি শুনেছি, খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।

মধুখালী উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা মোস্তফা মনোয়ার বলেন, ‘ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অন্য শিক্ষক ও প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টদের তলব করেছি, ত’দন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *