এবার মাত্র তিন ঘণ্টায় শেষ করতে হবে পবিত্র ওমরাহ

মক্কায় ওমরাহ পালনের জন্য মাত্র তিন ঘণ্টা সময় দেবে সৌদি কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে ওমরাহ শুরু ও শেষ করতে হবে হাজীদের। করোনার কারণে প্রায় সাত মাস বন্ধ থাকার পর আগামী ৪ অক্টোবর থেকে ওমরাহ পালনের সুযোগ দিতে চলছে সৌদি আরব। প্রথম দফায় সৌদি নাগরিক ও দেশটিতে বসবাসরত বিদেশিরা অনুমতি পাবেন পাবেন। তবে মক্কায় তাদেরকে ওমরাহ শুরু ও শেষ করার জন্য মাত্র তিন ঘণ্টা সময় দেওয়া হবে। তিন ধাপে পর্যায়ক্রমে মুসল্লিদের এ সুযোগ দেয়া হবে। প্রথম ধাপে কেবল সৌদিতে অবস্থানরত ব্যক্তিই এ সুযোগ পাবেন। বিশেষায়িত অ্যাপের সাহায্যে এবার ওমরাহ আদায়ের পুরো কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করা হবে। প্রথম স্তরে প্রতিদিন ছয় হাজার লোক ছয় ধাপে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে ওমরাহ আদায় করতে পারবেন। প্রতি এক হাজার লোক ওমরাহ আদায়ের জন্য তিন ঘণ্টা সময় পাবেন। প্রথম স্তরে শুধু সৌদিতে অবস্থানরত ব্যক্তিরা ওমরায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। সাধারণ ধারণক্ষমতার ৩০ ভাগ তথা ছয় হাজার লোক প্রতিদিন ওমরাহ আদায়ের সুযোগ পাবেন। আগামী ১৮ অক্টোবর থেকে শুরু হবে দ্বিতীয় স্তরে ওমরাহ পালন। ধারণ ক্ষমতার ৭৫ ভাগ তথা ১৫ হাজার লোক ওমরাহ ও ৪০ হাজার লোক নামাজ আদায়ে অংশ নিতে পারবেন। এরপর এক নভেম্বর থেকে তৃতীয় স্তরে ২০ হাজার লোক ওমরাহ ও ৬০ হাজার লোক নামাজ আদায়ে অংশ নিতে পারবেন।

আরও পড়ুন=বিরুষ্কাকে জড়িয়ে কুরুচিকর মন্তব্যের জেরে দিনভর শিরোনামে সুনীল গাভাস্কার। আইপিএলে কোহলির পারফরম্যান্স নিয়ে তির্যক মন্তব্যের জেরে ইতিমধ্যেই পাল্টা দিয়েছেন বিরাটের স্ত্রী অনুষ্কা শর্মা। এবার এই বিতর্কে মুখ খুললেন লিটল মাস্টার স্বয়ং।একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, “প্রথমেই আমি একটা জিনিস স্পষ্ট করতে চাই, আমি কোথায় অনুষ্কাকে দোষ দিয়েছি? আমি তো ওঁকে দোষ দিইনি। আমি শুধু এটাই বলেছি যে, ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে ওঁ বিরাটকে বল করছে।

লকডাউন পর্বে বিরাট ওঁর বল খেলছিল। সেটা টেনিস বল। সময় কাটানোর জন্য অনেকেই লকডাউনে এরকম করেছে। এটাই। আমি কোথায় বিরাটের ব্যর্থতার জন্য ওঁকে দোষ দিয়েছি।প্রসঙ্গত, কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের কাছে হারের পর কোহলি ও অনুষ্কা শর্মা- দুজনকেই চূড়ান্ত অপমান করার অভিযোগ উঠেছিল সুনীল গাভাস্কারের বিরুদ্ধে।ধারাভাষ্য দেওয়ার সময় গাভাস্কার বলে দেন, “কোহলি লকডাউনে অনুষ্কার বলেই কেবল অনুশীলন করেছে।” এর পরেই ব্যাপক সমালোচনার মুখোমুখি হন কিংবদন্তি ক্রিকেটার। ধারাভাষ্যকারদের প্যানেল থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি ওঠে তারপরেই।

পাল্টা অনুষ্কা শর্মা সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন, “মিস্টার গাভাস্কার, আপনার মন্তব্য যে কুরুচিপূর্ণ, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। আপনি এতদিন ধারাভাষ্যকার হিসাবে বাকি ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত জীবনকে সম্মান জানিয়ে এসেছেন। গতকাল আমার স্বামীর পারফরম্যান্স নিয়ে আরও অনেক শব্দ ব্যবহার করতে পারতেন। তবে আমার নাম কেন জড়িয়ে মন্তব্য করলেন বুঝলাম না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *