কোহলি অনুশকাকে নিয়ে গাভাস্কারের কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য

খেলার মাঝে ধারাভাষ্যকাররা কতরকম কথাই তো বলেন। তবে ভারতীয় সাবেক ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কার যা বলেছেন তা হয়তো সবকিছুর সীমা অতিক্রম করে গেছে। বৃহস্পতিবার রাতে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব বনাম রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু ম্যাচে কোহলির বাজে পারফরম্যান্সের কারণ হিসেবে গাভাস্কার টেনে এনেছেন তার স্ত্রী আনুশকা শর্মাকে। শুধু টেনে এনেই ক্ষান্ত হননি, করেছেন কুরুচিপুর্ণ মন্তব্য যা অন্তত ধারাভাষ্য কক্ষে শোভা পায় না। এরই মধ্যে বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক সমালচনার মুখে পড়েছেন তিনি।
গতকালের ম্যাচে পাঞ্জাব অধিনায়ক লোকেশ রাহুলের দুটি ক্যাচ মিস করেন কোহলি। এছাড়া ব্যাট হাতে তেমন রানও করতে পারেননি তিনি। এ সময় গাভাস্কার হিন্দিতে হেসে হেসে বলেন, ‘ইন হোনে লকডাউন মে তো ব্যাস আনুশকা কি গেন্দ কি প্রাকটিস কি হ্যায়!’ এই বাক্যের বঙ্গানুবাদটা অনেকটা এমন- ‘ইনি তো লকডাউনে শুধু আনুশকার বলেরই অনুশীলন করেছেন!’

গাভাস্কারের এই কথা সরাসরি অশ্লীলতার পর্যায়ে পড়ে। এখানে রয়েছে যৌন-শ্লেষ এবং ব্যঙ্গতার ছড়াছড়ি। গাভাস্কারের এই মন্তব্যের সঙ্গে ক্রিকেটের কি সম্পর্ক সেটা বুঝতে পারেননি কেউই। তাছাড়া ক্রিকেট মাঠে ব্যর্থতার জন্য কারো পারিবারিক জীবন বা তার স্ত্রীকে টেনে আনার কোন যৌক্তিকতা খুঁজে পাননি খোদ কোহলি ও আনুশকা।

গাভাস্কারের এমন মন্তব্যেওরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই তাকে ধুঁয়ে দিচ্ছে। এমনকি তাকে স্টার ইন্ডিয়ার কমেন্ট্রি প্যানেল থেকে সরিয়ে দেয়ারও দাবি উঠেছে। চুপ থাকেননি আনুশকাও। তিনি গাভাস্কারের উদ্দেশ্যে বেশ বড় একটি বার্তা লিখেছেন।

আনুশকা লেখেন, জনাব গাভাস্কার, আপনার কথাটি একদম অখাদ্যের মত ছিল। আপনি কি আমাকে বলতে পারবেন একজন স্ত্রীকে তার স্বামীর ম্যাচে খারাপ করার পেছনে দায় দেয়া কতটা যুক্তিসঙ্গত? আমি নিশ্চিত যে আপনি ধারাভাষ্যের সময় একজন ক্রিকেটারের ব্যক্তিগত জীবনকে এতদিন সম্মান করেই এসেছেন।

এই বলিউড তারকা আর লেখেন, আপনি কি মনে করেন না যে আমার এবং আমাদের (কোহলি ও আনুশকা) সমান সম্মান পাওয়া উচিৎ? আমি জানি যে আমার স্বামীর গতকাল রাতে খারাপ খেলার পেছনে আপনি আরো অনেক ধরণের বাক্য ব্যয় করতে পারতেন। কিন্তু সেখানে আমাকে জড়িয়ে কী লাভ হয়েছে? এটা ২০২০ সাল এবং আমার এসবে কিছুই যায় আসে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *