স্বপ্নের নায়ক সালমান শাহর কাছে তরুণীর আ’বেগঘ’ন চিঠি

মনের না বলা কত কথাই তো তুমি জানলে না, ভক্ত’দের এত আকুতি, তাদের হৃদ’য়ের র’ক্ত’ক্ষ’রণ কিছুই তো তুমি দেখলে না। অ’ভিমান করে’ই চলে গেলে না ফে’রার দেশে। তুমি কি জানো তো’মা’র মৃ’ত্যু’র সংবাদ পেয়ে ২১ তরুণীর আ’ত্ম’হ’ত্যা’র কথা? তুমি কি জানো তুমি চলে যাওয়ার এত বছর পরেও লাখো লাখো মানুষ তো’মায় ভু’লতে পারেনি! কেন ভুলতে পারেনি সেটা কি তুমি জানো?

তোমা’র হা’সিতে মানুষ হেসেছে, তোমা’র ক’ষ্টে মানুষ কেঁদে’ছে। তোমা’র পরা নতুন কোনো জামা সারাদে’শেই স্টাইল হয়ে গেছে। এখনো ঈদে নতুন কো’নো সিনে’মা’র পাশাপাশি তোমা’র সিনেমা দেখানো হলে আগ্রহ সহকারে তোমা’র সিনেমাটাই দেখে মানুষ। তুমি তো জানো না, ফেসবুক নামক একটা সোশ্যাল জগৎ আছে। আর সেই জগতে বিশ্বের নামকরা সব নায়ক নায়িকাদের সঙ্গে তুমিও আছো।

এইভাবে চলেই যদি যাবে তবে কেন এসেছিলে? কেন মনোমুগ্ধকর, নয়ন ভোলানো অ’ভিনয় করেছিলে প্রতিটা সিনেমাতে? এখনো তোমা’র ভক্তরা লুকিয়ে লুকিয়ে কাঁদে, তোমা’র জন্য কত অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। কেও কেও আবার তুমি চলে যাওয়ার পরে বাংলাদেশি সিনেমা দেখাই বাদ দিয়ে দিয়েছে, তোমা’র মৃ’ত্যুর পরে জন্ম নিয়েও কেউ কেউ হয়েছে সালমান শাহ ভক্ত। এসব কোনো কথাই তো তুমি জানলে না।

ক্ষণস্থায়ী ছোট্ট একটা জীবনে কত কিছু করে গেলে তুমি। যেখানে অন্যদের ক্যারিয়ার সাজাতেই ৩/৪ বছর লেগে যায়, সেখানে মাত্র সাড়ে তিন বছরের ফিল্ম ক্যারিয়ারে সর্বমোট ২৭টি ছবিতে অ’ভিনয় করে গেলে। সুপারহিট সিনেমা, একক নাট’ক, ধারাবাহিক নাট’ক, বিজ্ঞাপনে কত রকমভাবে হাজির হয়েছিলে তুমি। কিন্তু পর্দার নায়করা সবকিছু পারলেও বাস্তবে একবার এই দুনিয়া ছেড়ে চলে গেলে আর ফিরে আসতে পারে না। জানি ভক্তদের এই ভালোবাসার প্রতিদান দিতে তুমিও আর কোনো দিন ফিরে আসবে না। তবুও তোমায় বলি। তোমা’র কি সেই গানটার কথা মনে আছে? যেই গানটায় তুমি আকাশের ঠিকানায় চিঠি লিখতে বলেছিলে?

সালমান শাহ
আকাশের ঠিকানায় কি সত্যিই চিঠি লিখা যায়? আর যদি চিঠি লিখি, তোমা’র জবাব কি আম’রা পাব, স্বপ্নের নায়ক? তুমি যেখানেই থাকো, ভালো থেক। জন্ম’দিনে লাল গো’লাপ শুভেচ্ছা তোমায়।

ইতি-

তোমা’র ভক্ত তাহরিমা মাহ’জাবিন
শিক্ষার্থী, রসায়ন বিভাগ, সরকারি তিতুমীর কলেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *