লকডাউনে প্রেমিককে বিয়ে করতে ৬০ কিলোমিটার হাঁটলেন প্রেমিকা

করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে থরথর করে কাঁপছে গোটা বিশ্ব। ভাইরাসটির সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা হু হু করে বাড়ায় বিশ্বের বেশির ভাগ দেশ বা অঞ্চলে লকডাউন ও জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। তবে লকডাউন ও মহামারির মুহূর্তে পরিবারের বাধা পেয়ে প্রেমিককে বিয়ে করতে প্রায় ৬০ কিলোমিটার পথ হাঁটলেন এক তরুণী।
সম্প্রতি ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে এমন আশ্চর্যজনক ঘটনা ঘটেছে।

অন্ধ্রপ্রদেশের কৃষ্ণা জেলার হনুমান জংশন এলাকার মেয়ে চিটিকলা ভবানী। তার বাড়ি থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার দূরের এডেপল্লী গ্রামের বাসিন্দা সাই পুন্নায়ার সঙ্গে চার বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। অনেকদিন তাদের সম্পর্ক গোপন ছিল। কয়েকদিন আগে ভবানী তার পরিবারকে সাই পুন্নায়ার সঙ্গে সম্পর্কের কথা জানায়। এতে ছেলেকে দেখে ভবানীকে বিয়ের দেয়ার ঘোর আপত্তি করে পরিবার। এতেই চটে যান ভবানী। প্রেমিকের সঙ্গে পরামর্শ করে পালিয়ে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন।

এরইমধ্যে ভারতে লকডাউন শুরু হয়। তাদের সিদ্ধান্তে পানি ঢেলে দেয় লকডাউন। কিন্তু থেমে থাকার পাত্রী নন ভবানী। নিজের বাড়ি থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে প্রেমিকের বাড়িতে হেঁটে রওনা দেন। প্রেমিকের বাড়িতে পৌঁছার পর তাকে বরণ করা হয়। এরপর পর তাদের প্রেমের বিরহের আগুনে পানি ঢেলে দেয় বিয়ে। তাদের বিয়ের সব কাজ সম্পন্নের খবর পেয়ে অগ্নিশর্মা ভবানীর পরিবার। সাই পুন্নায়ারকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়া হয়। তাই বাধ্য হয়ে নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে স্থানীয় থানায় জিডি করেন নবদম্পতি। প্রাপ্ত বয়স্ক দুইজনকে হুমকি দেয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে ভবানীর পরিবারকে থানায় ডাকা হয়।

স্থানীয় থানার কর্মকর্তা জানান, তরুণী ভবানী প্রেমিককে বিয়ে করতে প্রায় ৬০ কিলোমিটার পথ হেঁটে পাড়ি দিয়েছেন। বিয়ের পর নিরাপত্তার জন্য আবেদন করেছেন নবদম্পতি। ভবানী ও সাই প্রাপ্ত বয়স্ক। তাই দুই পরিবারের কোনো অভিযোগ গ্রহণযোগ্য নয়। তবে দুই পরিবারকে থানায় এনে কাউন্সিলিং করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *