হবু শ্বশুরের সঙ্গেই বিয়ে হল কনের!

ঘটনা চলতি অক্টোবরের। ভারতের বিহার রাজ্যে সেদিন বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা ছিল স্বপ্না (২১) নামের এক নারীর। বিয়েও হয়েছিল। কিন্তু বরের সঙ্গে নয়, হবু শ্বশুরের সঙ্গে।

১০ ফুটের একটা রাস্তা পার হতেই দাঁড়িয়ে থাকতে হয় ২০-৩০ মিনিট। আর মাঝে মাঝে এর থেকেও বেশি সময় লাগে। আর তখন কি কারো ধৈর্য থাকে।

তাই ধৈর্য হারিয়ে ‘স্পাইডার-ম্যান’ হয়ে উঠেছিলেন এক ব্যক্তি। সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে। অ’তিরিক্ত গাড়ির চাপে বির’ক্ত হয়েই বৈদ্যুতিক তার বেয়ে রাস্তা পার হয়েছেন সেই ব্যক্তি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে জানা যায়, অনেকক্ষণ অ’পেক্ষার পরেও গাড়ির চাপে রাস্তা পার হতে পারছিলেন সেই ব্যক্তি। পড়ে ক্ষেপে গিয়েই বৈদ্যুতিক পোল বেয়ে তারের মাধ্যমে রাস্তা পার হন তিনি।

এমন কা’ণ্ড দেখে রীতিমতো অ’বাক হয়ে পড়েন রাস্তায় থাকা পথচারী এবং গাড়ির যাত্রীরা। আর একজন এ ঘটনা ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়েও দেন। এরপর দ্রুতই ভাইরাল হয়ে পড়ে সেটি।

কেউ কেউ ওই ব্যক্তিকে ‘ভিয়েতনামের স্পাইডার-ম্যান’ খেতাব দিলেও সমালোচনা করেছেন অনেকেই। এভাবে তিনি শুধু নিজের জীবনই নয়, ঝুঁ’কিতে ফেলেছেন অন্যদেরও। তাই, যতই ব্যস্ততা থাক, এমন পাগলামী থেকে সবাইকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

লগ্ন অনুযায়ী বিয়ের দিন রাজ্যের সমস্তিপুর এলাকায় কনের বাড়িতে হাজির হন বরপক্ষ। এমন সময়ে প্রেমিকাকে নিয়ে পালিয়ে যান বর।

দুই পক্ষই এতে বেশ নাস্তানাবুদ হয়। শেষমেষ সম্মান বাঁ’চাতে এক অদ্ভূত সিদ্ধান্ত নেন কনের বাবা। তিনি নিজের মেয়েকে বরের বাবা রোশানের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার প্রস্তাব দেন। এই প্রস্তাবে রাজিও হন রোশান।

এমন পরিস্থিতিতে সামাজিকভাবে কোন পথ খোলা না পেয়ে বিয়েতে রাজি হয়ে যান কনে স্বপ্নাও। ওই দিনেই ৬৫ বছর বয়সী হবু শ্বশুরের সঙ্গে মালাবদল করেন তিনি।ঘটনা চলতি অক্টোবরের। ভারতের বিহার রাজ্যে সেদিন বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা ছিল স্বপ্না (২১) নামের এক নারীর। বিয়েও হয়েছিল। কিন্তু বরের সঙ্গে নয়, হবু শ্বশুরের সঙ্গে।

১০ ফুটের একটা রাস্তা পার হতেই দাঁড়িয়ে থাকতে হয় ২০-৩০ মিনিট। আর মাঝে মাঝে এর থেকেও বেশি সময় লাগে। আর তখন কি কারো ধৈর্য থাকে। তাই ধৈর্য হারিয়ে ‘স্পাইডার-ম্যান’ হয়ে উঠেছিলেন এক ব্যক্তি। সম্প্রতি এ ঘটনা ঘটে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে। অ’তিরিক্ত গাড়ির চাপে বির’ক্ত হয়েই বৈদ্যুতিক তার বেয়ে রাস্তা পার হয়েছেন সেই ব্যক্তি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে জানা যায়, অনেকক্ষণ অ’পেক্ষার পরেও গাড়ির চাপে রাস্তা পার হতে পারছিলেন সেই ব্যক্তি। পড়ে ক্ষেপে গিয়েই বৈদ্যুতিক পোল বেয়ে তারের মাধ্যমে রাস্তা পার হন তিনি।

এমন কা’ণ্ড দেখে রীতিমতো অ’বাক হয়ে পড়েন রাস্তায় থাকা পথচারী এবং গাড়ির যাত্রীরা। আর একজন এ ঘটনা ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়েও দেন। এরপর দ্রুতই ভাইরাল হয়ে পড়ে সেটি।

কেউ কেউ ওই ব্যক্তিকে ‘ভিয়েতনামের স্পাইডার-ম্যান’ খেতাব দিলেও সমালোচনা করেছেন অনেকেই। এভাবে তিনি শুধু নিজের জীবনই নয়, ঝুঁ’কিতে ফেলেছেন অন্যদেরও। তাই, যতই ব্যস্ততা থাক, এমন পাগলামী থেকে সবাইকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

লগ্ন অনুযায়ী বিয়ের দিন রাজ্যের সমস্তিপুর এলাকায় কনের বাড়িতে হাজির হন বরপক্ষ। এমন সময়ে প্রেমিকাকে নিয়ে পালিয়ে যান বর।

দুই পক্ষই এতে বেশ নাস্তানাবুদ হয়। শেষমেষ সম্মান বাঁ’চাতে এক অদ্ভূত সিদ্ধান্ত নেন কনের বাবা। তিনি নিজের মেয়েকে বরের বাবা রোশানের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার প্রস্তাব দেন। এই প্রস্তাবে রাজিও হন রোশান।

এমন পরিস্থিতিতে সামাজিকভাবে কোন পথ খোলা না পেয়ে বিয়েতে রাজি হয়ে যান কনে স্বপ্নাও। ওই দিনেই ৬৫ বছর বয়সী হবু শ্বশুরের সঙ্গে মালাবদল করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *