অবশষে তরুণীর অভিযোগে ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে সবকিছু জানালেন অমিতাভ রেজা

দেশের জনপ্রিয় নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরীর বিরুদ্ধে অভিনয়ে সুযোগের নামে কুপ্রস্তাব দেয়ার অভিযোগ এনে হেয় করার চেষ্টা করেছেন সুমাইয়া অনন্যা নামের এক তরুণী। শুধু তাই নয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সেই তরুণী যেসব কথোপকথনের স্ক্রিনশট দিয়েছেন সেগুলোর সঙ্গে আসল অমিতাভ রেজার আইডির কোনো মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে ওই তরুণীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অমিতাভ রেজা তার ভেরিফায়েড ফেসবুক থেকে দুটি ‘অমিতাভ রেজা’ আইডির ছবি প্রকাশ করে জানিয়েছেন, এগুলো তার ফেক আইডি। ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, স্ক্রিনশটে যে ফেসবুক একাউন্টটি দেখতে পাচ্ছেন এটা একটা ফেক/ ভুয়া একাউন্ট। আমার নামে খোলা এমন অনেক ভুয়া একাউন্টে ফেসবুক এখন সয়লাব। অনেকে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে চেয়ে এই সমস্ত ভুয়া একাউন্ট দ্বারা বিভ্রান্ত হচ্ছেন। আমার পরিচয় ব্যবহার করে এই সব ভুয়া একাউন্ট থেকে যারা অন্যদের সঙ্গে প্রতারণা করে যাচ্ছেন; অনুরোধ করব এই কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকুন।এদিকে অমিতাভ রেজার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এসব ফেক আইডির কারণে অনেক গণ্যমান্য ব্যক্তির সম্মানহানি হচ্ছে। আমি সবার কাছে অনুরোধ করবো কেউ যাতে এসব ভুয়া অ্যাকাউন্টের ফাঁদে পা না দেন।

আর সবার জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি, এই সব ভুয়া একাউন্ট থেকে বিরত থাকুন এবং ফেক একাউন্ট হিসাবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট করুন। যারা এইভাবে আমার নামে ভুয়া একাউন্ট পরিচালনা করছেন, তাদের বিরুদ্ধে আমি যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেব। আবারো বলছি, আমি এই একটি ভেরিফাইড একাউন্টই পরিচালনা করি। অন্য কোনো একাউন্টে আমাকে খুঁজবেন না।সুমাইয়া অনন্যা নামের ওই নারী সেসব কথোপকথনের ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করেন সেখানে আইডির ছবির সঙ্গে অমিতাভ রেজার ভেরিফায়েড আইডির ছবির কোনো মিল নেই। আর এখানেই জট খুলে যায়; তরুণীর সঙ্গে যোগাযোগ করা আইডিটি অমিতাভ রেজার নয়, সেটি আসলে ফেক আইডি। এদিকে, তরুণীর দাবি অমিতাভ রেজা তার সঙ্গে ভিডিও কলেও কথা বলেছে এবং স্ক্রিনশটও দিয়েছেন। কিন্তু যাচাই করে দেখা যায় তরুণীর দেয়া সেই ভিডিও কলের স্ক্রিনশটটি ২০১৬ সালের। সেটি ব্যক্তিগত কোনো ভিডিও চ্যাট ছিলো না বরং অমিতাভ রেজা তখন ফেসবুক লাইভে এসেছিলেন। অতএব, এতকিছুর পরে সোশ্যাল অডিয়েন্সদের আর বুঝতে বাকি নেই যে জনপ্রিয় নির্মাতা অমিতাভ রেজাকে হেয় করার জন্যই কুচক্রি মহল এমন ফাঁদ পেতেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *