ধর্মান্তরিত মেয়ের আচরণে মুগ্ধ হয়ে একই পরিবারের ৬ জনের ইসলাম গ্রহণ

সিলেটের ওসমানীনগরে একই পরিবারের ৬ জন ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।জানা গেছে, প্রথমে ওই পরিবারের এক মেয়ে ধর্মা’ন্তরিত হয়। পরে তার আচরণে মুগ্ধ হয়ে পরিবারের বাকি ওই ছয়জন ইসলাম গ্রহণ করেছে।

আরও জানা গেছে, ওই পরিবারের ২ মেয়ে জোসনা ও মরিয়ন ২০০৪ সালের ২৫ জানুয়ারি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেও পিতৃ পরিবারের সাথে তাদের সর্ম্পকছে’দের পরিবর্তে আরো দায়িত্বশীল হয়ে উঠে। বিষয়টিতে তৃপ্ত হন ধর্মা’ন্তরিত মেয়েদের বাবা রাধীকা রায়। এভাবে দিন-মাস-বছর গড়িয়ে যায়। তারপরও ধর্মা’ন্তরিত মেয়েরা স্বামীর পরিবারে থাকলেও পিতা মাতার প্রতি তাদের সর্ম্পক গভীর করে তোলে।

এতে করে ইসলাম ধর্মের প্রতি আগ্রহ বেড়ে যায় রাধীকা রায়, তার স্ত্রী ও অন্যান্য সন্তানদের। এক পর্যায়ে স্বে’চ্ছায় স্ব’জ্ঞানে ধর্ম পরিবর্তন করে ইসলম ধর্ম গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেন তারা।এরই প্রেক্ষিতে আইনী মাধ্যমে তারা ইসলাম ধর্মের প্রতি নিজের আনুগ’ত্য প্রকাশ করে, কালেমা শাহাদাত পাঠ করে ইসলাম ধর্মগ্রহণ করেন।

ধর্মগ্রহণকারীরা হচ্ছেন, ওসমানীনগরের সাদিপুর ইউনিয়নের সাদিপুর গ্রামের মৃত রাধা রসন রায়ের পুত্র রাধীকা রায় (৯০) (বর্তমান নাম আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ), রাধীকা রায়ের স্ত্রী সিন্দু রানী রায় (৭৫) (বর্তমান নাম খাদিজাতুল কুবরা), রাধীকা রায়ের পুত্র নিথিশ রায় (৩৪) (বর্তমান নাম আব্দুল্লাহ ওমর), নিথিশ রায়ের স্ত্রী ঝুমা রাণী রায় (৩৩) (বর্তমান নাম উম্মে কুলসুম), নিথিশ রায়ের দুই পুত্র সজীব রায় (১০) (বর্তমান নাম আব্দুল্লাহ জায়েদ) ও সূর্য রায় (৪) (বর্তমান নাম আব্দুল্লাহ হোবাইদ)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *