শুধু মাত্র ২১ দিন সংসার করেছেন কোহলি-আনুশকা

লকডাউনের এই সময়টা অনেকের জন্য হয়তো ভীষণ অস্বস্তির। তবে কারও কারও জন্য ‘শাপেবর’ই হয়েছে। বিরাট কোহলি আর আনুশকা শর্মার কথাই ধরুন। দুই জন দুই জগতের তারা। স্বামী-স্ত্রী হয়েও কাজের ব্যস্ততার কারণে একে অপরের সঙ্গে দেখা করাই ছিল কঠিন।

গণমাধ্যমের কল্যাণে মানুষের অজানা নয়, একে অপরের কাজের জায়গায় তারা হাজির হতেন। অনেক সময় কোহলির সফরে আনুশকা বা আনুশকার সিনেমার কোনো শ্যুটিংয়ে কোহলিকে দেখা গেছে।

কিন্তু বাস্তবতা হলো, সেটা কোনো হলিডে নয় বরং একে অপরকে এক ঝলক দেখা বা একসঙ্গে একবেলার খাবার খাওয়া মাত্র। ভোগ ম্যাগাজিনকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে আনুশকাই জানালেন এমন তথ্য।

বিয়ের প্রথম ছয় মাসে মাত্র ২১ দিন একসঙ্গে কাটানোর সুযোগ হয়েছিল কোহলি-আনুশকা দম্পতির। হ্যাঁ, মাত্র ২১ দিন। আর বলিউড অভিনেত্রী আনুশকাও সেটা একদম কাগজে কলমে হিসেব করে রেখেছেন।

আনুশকা বলেন, ‘মানুষজন ভাবে যখন আমি বিরাটের সঙ্গে দেখা করতে অন্য দেশে যাই, বা ও আমার কাজের জায়গায় আসে-সেটা হলিডে কিন্তু একেবারেই তেমনটা নয়। কারণ একজন মানুষ সবসময়ই কাজে ব্যস্ত। শুনলে অবাক হবেন আমাদের বিয়ের প্রথম ছয় মাসে একসঙ্গে মাত্র ২১ দিন কাটিয়েছি আমরা। হ্যাঁ, আমি সত্যি হিসাব করে দেখেছি। তাই যখন আমি বিদেশে যাই ওর কোনও ক্রিকেট ট্যুরে, তখন হয়তো একবেলা খাবার টেবিলে আমাদের দেখা হয়-কিন্তু সেই সময়টুকুই আমাদের দুজনের জন্য মূল্যবান।’

তাই লকডাউনটা অভিশাপের মধ্যেই আশীর্বাদ হয়ে নেমে এসেছে ‘বিরুশকা’র জীবনে। বিয়ের পর একসঙ্গে এত লম্বা সময় কাটানোর সুযোগ এই প্রথম পাচ্ছেন তারা। আর তাদের ঘরবন্দি জীবনের নানান মুহূর্ত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মাধ্যমের কল্যাণে জানতে পারছেন ভক্ত-সমর্থকরাও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *