যারা বি’বাহিত শু’ধু তারাই মনোযোগ দিয়ে প’ড়বেন

তাই প’ছন্দের মানুষের মন জয় করতে নিজেকে আ’কর্ষণীয় করে তুলুন। প্র’থমে ভালোবাসার মানুষটির চোখকে আ’কৃষ্ট করুন। তারপর নিজের ব্য’ক্তিত্ব দিয়ে তার মন জয় করুন। অপর কোনো ব্য’ক্তিকে আপনি তখনই ভালোবাসতে পারবেন যখন আপনি নিজে স’ম্পূর্ণ ভালোবাসতে পারবেন। তাই আগে নিজেকে ভালোবাসুন। নিজের মতো করে সময় কাটান। ব’ন্ধুদের সঙ্গে ঘুরতে যান। ভালোবাসার মানুষটিকে গু’রুত্ব অ’বশ্যই দিন। কিন্তু তাকে জীবনের কেন্দ্রবিন্দু বানিয়ে ফেলবেন না।তাই এই প্র’তিবেদনে এমনকিছু টিপস রইল যা আপনার স’ঙ্গীর আপনার প্রতি আ’কর্ষণ বাড়াবে এবং আপনি নি’জস্বতাও হারাবেন না।

আক’র্ষনীয় হয়ে উঠুন : মন এবং শ’রীর, উভয় মিলেই মানুষ। মনের স’ঙ্গে শ’রীরকেও প্রাধান্য দিন। নিজেকে ফিট রাখুন। নিজেকে আরো আ’কর্ষণীয় করে তোলার চে’ষ্টা করুন। নিজের সাজ-পোশাক এবং ব্য’ক্তিত্বের ওপর নজর রাখুন। পু’রুষকে নারীর সৌ’ন্দর্য প্রাথমিকভাবে ‘আকর্ষণ করে।মানুষকে নিজের প্রতি আ’কর্ষিত করার তেমন কোনো রু’লবুক নেই। কারণ ভিন্ন মানুষ ভি’ন্ন ভাবনার হন।তাদের পছন্দ অ’পছন্দের তালিকাও হয় ভিন্ন। কিন্তু পু’রুষের কিছু সহজাত ভালোলাগা এরপরেও থেকে যায়। আর তার ভিত্তিতেই মন জয় করা যায় পু’রুষের কী সেই উপায়? হাজার রকম উপায় বাতলে দেওয়া যায় বটে এসব ক্ষেত্রে। কি’ন্তু এমন কোনো উপায় অ’বলম্বন করবে না যাতে আপনার স’ঙ্গীকে খুশি করতে গিয়ে নিজেদের সেই প্র’ক্রিয়ায় হারিয়ে ফেলেন।

অন্য মানুষের স’ঙ্গেও মে’লামেশা করুন। সামাজিকতা বজায় রাখলে আপনার নিজস্বতাও বজায় থাকবে। ৪. স’ম্পর্কের গুরুত্ব বুঝে নিন : এবার ভেবে দেখুন যাকে মনে ধরেছে তাকে কেমনভাবে চান নিজের জীবনে? তার প্রতি যদি আপনার চরম দু’র্বলতা থাকে তবুও তাকে নিয়ে অধিক ভাববেন না। নিজের জীবন, কাজ ই’ত্যাদিকেও প্রাধান্য দিন। মনে রাখবেন পুরুষরা স্বাধীনচেতা মহিলাদের বিশেষ স’ম্মানের চোখে দেখেন।

তাই মনের মানুষটির সঙ্গে যদি কথা হয়, তাও বোঝাবেন না যে আপনি তার সঙ্গেই নিজের ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখছেন। সাধারণ বন্ধুত্ব বজায় রাখুন। তাকে নিজের অ’নুভূতি আসতে আসতে বোঝান। কিন্তু নিজের ভালোলাগা তার উপর চাপিয়ে দেওয়ার চে’ষ্টা করবেন না।৩. নিজেকে ভালোবাসুন : একটা কথা মনে রাখবেন যদি ভালোবাসা শাশ্বত হয়, তবে অ’বশ্যই প্রয়োজনে ভালোবাসার মানুষের জন্য সাগর পাড়ি দিন। কি’ন্তু যদি সেই ভালোলাগা কয়েকটি ডেটের জন্য সী’মাবদ্ধ হয়, তবে ভেবে দেখুন অ’কারণ খাটবেন কি না বেশি ভাববেন না : পুরুষকে নিয়ে বেশি ভাববেন ন।।

শুধু মহিলাদের জন্যই এই দ্বীপ! পুরুষেরা যেতে পারবেন না এখানেপৃথিবীর বুকে এমনও এক দ্বীপ রয়েছে, যেখানে পুরুষ প্রবেশ নিষেধ! একটা গোটা দ্বীপে পা রাখতে পারেন না কোনও পুরুষ। একমাত্র মহিলাদেরই যাওয়ার ছাড়পত্র রয়েছে অত্যাশ্চর্য ওই দ্বীপে। কিন্তু কেন কোনও পুরুষ যেতে পারে না ওই দ্বীপে? এমন কী রহস্য আছে ওই জায়গায়, যে পুরুষদের পক্ষে সেই দ্বীপে যাওয়া বিপজ্জনক? না, আদতে ওই দ্বীপে ভয়ঙ্কর কিছুই নেই।লুকিয়ে নেই কোনও রহস্যও। দ্বীপটির নাম সুপারসি আইল্যান্ড। ফিনল্যান্ডের কাছে বাল্টিক সাগরের বুকে অবস্থিত এই দ্বীপ। আর গোটা দ্বীপটিই (৮.৪৭ একর) সম্প্রতি কিনে নিয়েছেন মার্কিন এক মহিলা ব্যবসায়ী, যার নাম ক্রিস্টিনা রথ। আর তিনিই ওই দ্বীপে পুরুষ প্রবেশ একেবারে নিষিদ্ধ করে দিয়েছেন।

আসলে ক্রিস্টিনা শুধুমাত্র মহিলাদের জন্যই এমন একটা জায়গা তৈরি করতে চেয়েছিলেন, যেখানে গিয়ে তারা সব সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। ওই দ্বীপে গিয়ে তারা দৈনন্দিন জীবন থেকে দূরে গিয়ে নিজেদের ফিটনেস, নিউট্রিশনের দিকে ধ্যান দিতে পারবেন। সেই জন্য রথ ওই দ্বীপে একটি রিসোর্ট গড়ে তুলছেন। সেখানে ৪টি বড় বড় কেবিন আছে এবং প্রতি কেবিনে ১০ জন করে মহিলা থাকতে পারবেন। রয়েছে স্পা, সওনা বাথের ব্যবস্থা। এর জন্য জনপ্রতি পাঁচদিনের খরচ দুই থেকে চার লক্ষ টাকতবে স্রেফ টাকা দিলেই ওই দ্বীপে যাওয়ার অনুমতি মিলবে না। এর জন্য বহুদিন আগে থেকে বুকিং করাতে হয়। তারপর হয় ইন্টারভিউ। সেই ইন্টারভিউ ক্লিয়ার করলে তবেই মিলবে ওই দ্বীপে যাওয়ার অনুমতি। তবে এই একটা দ্বীপে শুধু মাত্র মহিলারা যাবেন, পুরুষদের প্রবেশ নিষেধ– ব্যাপারটি লিঙ্গবৈষম্যমূলক নয় কি? মানতে নারাজ ক্রিস্টিনা। তিনি জানালেন, ছেলেদের প্রতি তার কোনও বিদ্বেষ নেই। কিন্তু এই মুহূর্তে শুধু মহিলাদের জন্যই ওই ব্যবস্থা। আগামী ভবিষ্যতে ছেলেদের জন্যও ওই দ্বীপ খুলে দেওয়া হবে।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *