ছদ্মবেশে ব্যাংকের সামনে ঘোরাঘুরি, সুযোগ বুঝে ডাকাতি

ছদ্মবেশে নগরের বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাঘুরি করেন তারা। একজন (সংকেত নাম বেদি) টার্গেট করা ব্যক্তিকে অনুসরণ করেন। টার্গেট করা ব্যক্তি কোন ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করছেন, কত টাকা উত্তোলন করছেন এসব তথ্য সংগ্রহ করেন।ওই ব্যক্তি যখন ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে বের হন- তখন তাকে অনুসরণ করতে থাকেন বেদি। পরে তার দলের অন্য সদস্যদের বিষয়টি জানিয়ে দেন তিনি। তারা সিএনজি অটোরিকশা বা মোটরসাইকেল করে এসে টাকা ছিনিয়ে নেন।

একটি ছিনতাই ও ডাকাত চক্রের ছয় সদস্যকে গ্রেফতারের পর এসব তথ্য জানিয়েছে পুলিশ। শনিবার (২৭ জুন) দুপুরে এ বিষয়ে ব্রিফিং করেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান।গ্রেফতার ছয় আসামি হলেন- মো. কামাল হোসেন (৩০), মোক্তার হোসেন (২২), সাদ্দাম (২৬), শের আলী (৩২), মাসুদুর রহমান (৪০) ও মো. এরশাদ (৩৩)।গত ১৬ জুন সংঘটিত একটি ডাকাতির ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে শুক্রবার (২৬ জুন) বিকেলে আসামিদের গ্রেফতার করা হয়।

উদ্ধার করা অস্ত্র, টাকা।কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন জানান, শুক্রবার বিকেলে কর্ণফুলী থানাধীন মইজ্জারটেক এলাকা থেকে এক আসামিকে শনাক্ত করে গ্রেফতার করা হয়।তার দেওয়া তথ্যে দামপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরও তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে আনোয়ারা ও ফটিকছড়ি উপজেলায় অভিযান চালিয়ে অপর দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।সিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মুহাম্মদ আবদুর রউফের তত্বাবধানে কোতোয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমার নেতৃত্বে কোতোয়ালীর একটি টিম এ অভিযান পরিচালনা করে।অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মুহাম্মদ আবদুর রউফ জানান, আসামিরা মূলত ছদ্মবেশী ডাকাত।

তারা বিভিন্ন এলাকায় ছদ্মবেশে ঘোরাঘুরি করে সুযোগ বুঝে ডাকাতি করে।তিনি বলেন, তাদের দলে একাধিক সদস্য রয়েছে। এদের কেউ টার্গেট করা ব্যক্তিকে অনুসরণ করে তথ্য সংগ্রহ করে। অন্যরা টাকা ছিনিয়ে নেয়।তিনি আরও জানান, গত ১৬ জুন দামপাড়া এলাকায় একটি ডাকাতির ঘটনা ঘটে। পরে ভুক্তভোগী থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগ তদন্ত করতে গিয়ে এ ডাকাত দলের বিষয়ে তথ্য পায় পুলিশ।আসামিদের কাছ থেকে একটি অস্ত্র, দুই রাউন্ড কার্তুজ, ডাকাতি করা নগদ ৫০ হাজার টাকা ও দুইটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *