কেউ সাহায্য করেনি, অসহায় স্বামীকে কাঁধে তুলে নিয়ে হাঁটলেন স্ত্রী!

একজন প্র’তিবন্ধী মানুষের জীবন কতটা চ্যালেঞ্জিং সেটা সকলেরই জানা। কিন্তু তার জীবনে যদি এমন কোনো মানুষ থাকে যে তার সব কাজে তার পাশে থাকে তাহলে তাহলেতার জীবনটা অনেক সরল হয়ে যায়। তারই পরিচয় দিলেন মহারাষ্ট্রের জলগাঁওয়ের বাসিন্দা দীপক এর সহধর্মিণী জ্যোতি।

উত্তর প্রদেশ থেকে নিজ রাজ্য ফেরার সময় কানপুর সেন্ট্রাল প্লাটফর্মে যেতে স্বামীকে কাঁধে নিলেন স্ত্রী। যা এক পতিব্রতা নারীর জলজ্যান্ত উদাহরণ। দীপক ও তার স্ত্রী কাজের জন্য ভীন রাজ্যে গিয়েছিল। কিন্তু তারপর লকডাউন ঘোষণার পর তারা সেখানেই আটকে যায়। তারা যেখানে কর্মরত ছিলেন সেখানে এক দু’র্ঘটনায় দীপক এর পা দুটো ভে’ঙে যায়। প্লা’স্টার করা হলেও দীপক হাটতে সক্ষ’ম হয়নি। লকডাউন এর প্রথমদিকে বহু শ্রমিক পায়ে হেঁটে বাড়ি ফেরার জন্য রহনা দিয়েছিলেন।

এর ফলে বহু দু’র্ঘট’না ঘটেছে। সেই জন্য সরকার থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন এর ব্যাবস্থা করা হয়।তাই তারা ট্রেন এর অপেক্ষায় কানপুর স্টেশনে ছিলেন। পরদিন সকালে যখন ট্রেন আসে তখন জ্যোতির স্বামী দীপককে সাহায্য করার জন্য কেউ এগিয়ে আসেনি তখন তিনি নিজে ওই প্রখর রোদের মধ্যে স্বামীকে কাধে নিয়ে ট্রেনে ওঠেন। স্টেশনে উপস্থিত সমস্ত মানুষ স্বামীর প্রতি স্ত্রীর এই গভীর ভালোবাসা দেখে অবাক হয়ে যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *