ত’দন্তে নয়া মোড়, পুলিশকে চা’ঞ্চল্যকর ত’থ্য দিলেন সুশান্তের সেই প্রেমিকা!

ত’দন্তে নয়া মোড়! বান্দ্রা পুলিশ স্টেশনে সুশান্ত সিংহ রাজপুতের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীকে বৃহস্পতিবার প্রায় আট ঘণ্টা জি’জ্ঞা’সাবাদ চালানোর পর পুলিশের হাতে উঠে এল চা’ঞ্চল্যকর কিছু তথ্য। মুম্বাইয়ের পুলিশ বলছে, রিয়া তার বয়ানে স্বী’কার করেছেন, সুশান্তের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল তার।

এ বছরের শেষের দিকে সুশান্ত এবং রিয়ার বিয়ের খবর, একেবারেই মিথ্যে নয়, সত্যি! সে জন্য চলছিল বাড়ি খোঁ’জাও। শুধু সম্পর্কেই নয়, লিভ-ইন রিলে’শনে ছিলেন তারা। লকডাউনের একটা দীর্ঘ সময় সুশান্তের বান্দ্রার ফ্ল্যাটে একসঙ্গে থাকছিলেন রিয়া-সুশান্ত। কিন্তু সুশান্তের মৃত্যুর দিন কয়েক আগে আচ’মকাই তার সঙ্গে মনো’মালিন্য হয় রিয়ার। রিয়া বেরিয়ে আসেন এবং আলাদা থাকতে শুরু করেন।

রিয়ার ফোন স্ক্যান করে পাওয়া গেছে দু’জনের ব্যক্তিগত মুহূর্তের অসংখ্য ছবি, টেক্সট মেসেজ। জানা গেছে, ঝ’গড়া হওয়ার পরেও দু’জনের কথা হ’ত। এমনকি মৃত্যুর আগের রাতে ঘুমোনোর আগে রিয়াকেই শেষ বার ফোন করেছিলেন সুশান্ত। তবে রিয়ার বয়ানে বারে বারেই উঠে এসেছে সুশান্তের আচ’রণগত পরিবর্তনের কথা। রিয়া পুলিশকে প্রমাণ দেখিয়েছেন, কীভাবে ব্যবহার ব’দলে যাচ্ছিল সুশান্তের। অব’সাদ কাটানোর চিকিৎসাও চলছিল তার।

রিয়া বার বার অনুরো’ধ করলেও ওষুধ খেতে চাইতেন না সুশান্ত। এর আগে একই কথা জানিয়েছিলেন রিয়ার ঘনি’ষ্ঠ বন্ধু, লেখিকা সুহৃতা সেনগুপ্তও। তিনি বলেছিলেন, রিয়া এবং সুশান্তের দিদি অভিনেতাকে ওষুধ খাওয়ার জন্য অনুরো’ধ করে গেলেও, তা শোনেননি তিনি। সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকেই সমানে উঠে আসছিল তার পর পর নতুন ছবি হাতে না থাকার প্রসঙ্গ। কিন্তু রিয়ার বয়ান বলছে অভিনেতার হাতে কাজ ছিল না, এমনটা নয়।

সুশান্তের সঙ্গে তার নিজেরই অন্তত দু’টি ছবি করার কথা ছিল। যা শেষ হতে হতে লেগে যেত পরের বছর। খুঁ’টিয়ে দেখা হচ্ছে রিয়া এবং সুশান্তের যাবতীয় হোয়াটস অ্যাপ চ্যাট, ক’লরে’কর্ডও। গতকাল সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ সাদা পোশাকে, মুখে মাস্ক এবং হাতে গ্লাভস পরে বান্দ্রা থানায় আসেন রিয়া। ক্লান্ত, বি’ধ্ব’স্ত রিয়াকে থানা থেকে বের হতে দেখা যায় সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টা নাগাদ। ধা’রণা করা হচ্ছিল, সুশান্তের মৃত্যু র’হস্যের জ’ট খুলতে পারে রিয়ার সঙ্গে পুলিশের কথো’পক’থনের পরেই। রিয়ার বয়ান প্রকাশ্যে আসতেই র’হস্যের জ’ট খোলার ই’ঙ্গিত ক্র’মশ গাঢ় হচ্ছে।

খুব শী’ঘ্রই মুম্বাই পুলিশ ডাক পাঠাতে চলেছে মুম্বাইয়ের প্রভা’বশালী প্রযোজনা সংস্থা যশরাজ ফিল্মসকে। খ’তিয়ে দেখা হবে সুশান্তের সঙ্গে তাদের চুক্তিপত্র, প্রতিভাবান তারকার অ’পমৃ’ত্যুর পর যা নিয়ে স’মালো’চনা হয়েছে বিস্তর। অতীত বলছে, এক সাক্ষাৎকারে সুশান্ত জানিয়েছিলেন, ক্যারিয়ারের শুরুতে তিনি চু’ক্তিব’দ্ধ ছিলেন যশরাজ ফিল্মসের সঙ্গে। চুক্তি অনুযায়ী তার ৩টি ছবি করার কথা ছিল এই ব্যানারের সঙ্গে।

তার মধ্যে দু’টি ছবি ”শুদ্ধ দেশি রো’মান্স” এবং ”ব্যোমকেশ বক্সী” বাস্তবায়িত হলেও তৃতীয় ছবি ”পানি” নিয়ে টালবা’হানা করা হয়। অথচ এই ছবিকে টো’প হিসেবে ব্যবহার করে ১১ মাস অভিনেতাকে অন্য ছবিতে সই করতে দেননি আদিত্য চোপড়া! আবার এই চু’ক্তির কারণেই দুটো বড় ছবি হাতছাড়া হয়েছিল সুশান্তের। যার মধ্যে একটি সঞ্জয় লীলা বানসালির ‘রামলীলা’, অন্যটি ‘বেফিকরে’।

সুশান্ত মা’রা গেছেন আজ পাঁচদিন। গত ১৪ জুন তার ফ্ল্যাট থেকে উ’দ্ধা’র হয়েছিল তার ঝুল’ন্ত দেহ। কিন্তু এই একটি মৃ’ত্যুই যেন আচ’মকাই নাড়িয়ে দিয়েছে বলিউডের আজ’ন্মলা’লিত নেপো’টিজম প্রথাকে। সামনে এনে রেখে দিয়েছে বেশ কিছু আড়ালে থেকে যাওয়া সত্যিকে। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *