৫ ফুট ৭ ইঞ্চি চুলের অধিকারিণী

নারীর মাথায় লম্বা কালো ঝলমলে কেশের আকর্ষণ সর্বত্রই! কোমর অব্দি চুল, বা হাঁটু পেরোনো চুলের গল্প তো অনেক শুনেছেন। কিন্তু একেবারে গোড়ালি অব্দি চুল? দশ বছর আগে পার্লারে চুল কাটাতে গিয়ে বিচ্ছিরি হেয়ারকাট নিয়ে সমস্যায় পড়েছিলেন ছয় বছরের এক শিশু।

সেই শিশুটিই বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা চুলের অধিকারিণী। আর ওই চুলের সৌজন্যেই গিনেস ওয়ার্ল্ডের খেতাব জয় করেছেন কিশোরী। গুজরাটের বাসিন্দা নীলাংশী প্যাটেল খারাপ চুলকাটার ঘটনায় বিরক্ত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন জীবনে চুলই কাটবেন না আর। ষোড়শী এই কিশোরী বিশ্বের দীর্ঘতম চুলের জন্য গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড জিতেছেন। তার চুলের দৈর্ঘ্য জেনে বাস্তবিকই স্তম্ভিত হয়ে যেতে হয় বিশ্ববাসীকে। ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি মাপের চুল নিয়ে নীলাংশী যেন রূপকথার রুপাঞ্জেল!

নীলাংশী সম্প্রতি এনডিটিভিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, “বিচ্ছিরিভাবে আমার চুল কাটা হয়েছিলো। এতই রাগ আর বিরক্তবোধ করেছিলাম যে সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আর কখনো চুল কাটিনি। তখন আমার বয়স ছিল মাত্র ৬। সেই থেকে দশ বছর পেরোল, চুল কাটিনি আমি।” নীলাংশীকে তার বন্ধুরা ভালোবেসে রুপাঞ্জেল বলেই সম্বোধন করেন। চুলের কীভাবে যত্ন নেন জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, সপ্তাহে একবার শ্যাম্পু করেন তিনি। “আমার মা আমাকে চুল আঁচড়াতে আর বাঁধতে সাহায্য করে বলে জানান তিনি।

নীলাংশী বলেন, “মানুষ মনে করেন যে আমার এত লম্বা চুল নিয়ে আমাকে নিশ্চয়ই অনেক সমস্যা পোহাতে হয়, কিন্তু আমার সত্যিই কোনো সমস্যা হয় না। আমি লম্বা চুল নিয়েই খেলাধুলাও করি, অন্য সব কাজও করি। আমার কোনো সমস্যাই হয় না। আমার চুল আমার জন্য লাকি চার্ম বলতে পারেন।”

“আমি স্টাইল করতে হলে লম্বা বিনুনি করি বা উঁচু করে খোঁপা বাঁধি। যখন আমি কোনো অনুষ্ঠানে যাই, বা যখন আমি টেবিল টেনিস খেলি, তখন আমি আমার চুলগুলো মাথায় উঁচু করে খোঁপা করে নিই যাতে সমস্যা না হয়, আমার কাজের পক্ষে আরামদায়ক হয় তা।”

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *