ছেলে জাতীয় দলে, বাবার জায়গা হয় না হাসপাতালে

বাংলাদেশ দলের তরুণ লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলামের বাবা আবদুল কুদ্দুস কদিন ধরেই ভুগছিলেন শ্বাসকষ্টে। অসুস্থ বাবাকে নিয়ে আমিনুল দুই দিন ধরে অন্তত পাঁচটি হাসপাতালে ঘুরেছেন। কোথাও তাঁর বাবাকে ভর্তি করাতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত কাল সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের সহায়তায় আমিনুল তাঁর বাবাকে ভর্তি করিয়েছেন মিরপুর হার্ট ফাউন্ডেশনে।

বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি করালেও চিন্তামুক্ত হতে পারেননি আমিনুল, ‘হার্টের সমস্যার কারণে বাবার শ্বাসকষ্ট। গতকাল (পরশু) থেকে অনেক চেষ্টা করছিলাম হাসপাতালে ভর্তি করতে। কিছুতেই পারছিলাম না। কোথাও নিতে চায় না। পরে তামিম ভাইয়ের সহযোগিতায় হার্ট ফাউন্ডেশনে ভর্তি করিয়েছি। মাত্রই ভর্তি করিয়েছি, বুঝতে পারছি না বাবার শারীরিক অবস্থা এখন কেমন।’

আজ সকালেও আমিনুল জানালেন, তাঁর বাবার শারীরিক অবস্থা আগের মতোই আছে। সকালে বাবার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষার ফল জানার পর পরবর্তী চিকিৎসা শুরু করবেন চিকিৎসকেরা।

গত মার্চে যে ২৭ ক্রিকেটার এক মাসের বেতনের অর্ধেক দিয়ে ২৭ লাখ টাকার তহবিল গঠন করেছিলেন, আমিনুল তাঁদের একজন। করোনার সময় মানুষের পাশে দাঁড়ানো ২০ বছর বয়সী লেগ স্পিনার বিপদে পড়ে বুঝলেন বাস্তবতা কতটা কঠিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *