যেসব এলাকায় চলছে কঠোর লকডাউন

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বান্দরবানের দুটি উপজেলাকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। একই কারণে নোয়াখালীর সদর ও বেগমগঞ্জে চলছে দ্বিতীয় দিনের মতো লকডাউন। এদিকে, নারায়ণগঞ্জের তিন এলাকাকে রেডজোন মুক্ত ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন।
করোনাভাইরাস মহামারির পরিপ্রেক্ষিতে রাজধানীর প্রথম এলাকা হিসেবে পরীক্ষামূলকভাবে পূর্ব রাজাবাজারে পুরোদমে কার্যকর করা হয়েছে লকডাউন। জরুরি সেবায় নিয়োজিত স্বাস্থ্যকর্মী আর সংবাদকর্মী ছাড়া এলাকাটি থেকে কাউকেই বের হতে দেয়া হচ্ছে না।

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় বান্দরবানের সদর ও রোমা উপজেলা লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। এরপর থেকেই জোরদার করা হয় পুলিশ ও সেনা টহল। এসব এলাকায় ওষুধের দোকান ব্যতীত সবধরণের দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। তবে সপ্তাহে রোববার ও বৃহস্পতিবার কাঁচাবাজার ও মুদি দোকান সীমিত আকারে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

নোয়াখালীর সদর ও বেগমগঞ্জ উপজেলায় চলছে দ্বিতীয় দিনের মতো লকডাউন। কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বসানো হয়েছে পুলিশের চেকপোস্ট। বাড়ানো হয়েছে র‌্যাব ও সেনাবাহিনীর তৎপরতা। তবে, লকডাউনের আওতামুক্ত রয়েছে জরুরি সেবা।

এদিকে, প্রত্যাহার করা হয়েছে নারায়ণগঞ্জের ৩টি এলাকায় পরীক্ষামূলক লকডাউন। গত ৭ জুন রেড জোন চিহ্নিত করে শহরের আমলাপাড়া, জামতলা ও ভূঁইগড়ের রুপায়ন টাউন এলাকাকে ১৫ থেকে ২১ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করে স্থানীয় প্রশাসন। পরে ওই এলাকায় সংক্রমণের হার কম দাবি করে তৃতীয় দিনের মাথায় আজ লকডাউন তুলে নেয়া হয়।

পরিস্থিতি বিবেচনায় লকডাউনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হতে পারে বলেও জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

DMCA.com Protection Status

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *