অক্সিজেন সিন্ডিকেটের কুকর্মের চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস

কারখানা পর্যায় থেকে চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহ করা সত্ত্বেও শুধুমাত্র ডিলারের মজুদ এবং কৃত্রিম সংকটের কারণেই অক্সিজেন সিলিন্ডারের দাম কয়েকগুণ বেড়েছে। সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান তদারকিতে এসে এসব তথ্য পেয়েছে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় বেড়েছে অক্সিজেন সিলিন্ডারের চাহিদা। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ফায়দা লুটছে সিন্ডিকেট চক্র। ১২ থেকে ১৬ হাজার টাকার অক্সিজেন সিলিন্ডারের দাম রাখা হচ্ছে ৩০ হাজার টাকার বেশি। এ অবস্থায় বুধবার (১০ জুন) সকালে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান তদারকিতে আসেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এতে বের হয়ে আসে অক্সিজেন সিন্ডিকেটের চাঞ্চল্যকর তথ্য।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম বলেন, বাইরের যে প্রতিষ্ঠানগুলো আছে, যারা ইন্ডাস্ট্রিয়াল অক্সিজেন তৈরি করে তাদের কাছ থেকে গোপনভাবে কোয়ালিটি না মেনেই রিফিল করে চড়া দামে বিক্রি করছে।

প্রতিদিনই চাহিদা অনুযায়ী সাড়ে ৩শো ছোট এবং ৩শো বড় সাইজের অক্সিজেন ভর্তি সিলিন্ডার সরবরাহ করা হচ্ছে। প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী দেয়া হয় এসব অক্সিজেন।

তবে মাঠের চিত্র পুরো ভিন্ন। অনেক ঘুরেও পাওয়া যাচ্ছে না অক্সিজেন সিলিন্ডার। পাওয়া গেলেও, দাম অনেক বেশি।

চট্টগ্রামে বর্তমানে ৩ হাজারের বেশি করোনা রোগীর পাশাপাশি আরো কয়েক হাজার শ্বাসকষ্টের রোগী রয়েছেন। যাদের অক্সিজেনের প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *