অবশেষে চালু হচ্ছে গণপরিবহন, বাড়ছে ৮০ শতাংশ ভাড়া

করোনা ভাইরাসের মধ্যেই চালু হচ্ছে গণপরিবহন। আগামী ১ জুন থেকে সীমিত পরিসরে চালু হবে। তবে এসময় বাস ও মিনিবাসের ভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করেছে বিআরটিএ। এসময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাসের ফাঁকা রাখতে হবে ৫০ ভাগ সিট। আজ শনিবার (৩০ মে) দুপুরে বিআরটিএতে বিআরটিএ ও সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিকদের বৈঠকে এ ভাড়া বৃদ্ধির সুপারিশ করা হয়।

ব্রিফিংয়ে বিআরটিএ চেয়ারম্যান ইউসুফ আলী মোল্লা জানান, ৫০ সিটের বাসে ২০ জন করে যাত্রী পরিবহন করা হবে। ফলে বাস পরিচালনার খরচ মেটাতে যাত্রীদের প্রায় দ্বিগুন ভাড়া গুণতে হবে। করোনার জন্য স্বাস্থ্যবিধি মানতেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক সমিতির সহ-সভাপতি আবুল কালাম বলেন, করোনার পরে এই ভাড়া কার্যক্রর থাকবে না। যাত্রীরা মাস্ক নিয়ে না আসলে বাস মালিক কর্তৃপক্ষ তা সরবরাহ করবে। ড্রাইভারদের পিপিই দেয়া হবে। পরিবহন শ্রমিক ও যাত্রীদের স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করেই মেন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ভাড়া বাড়ানোর শর্তে স্বাস্থ্যবিধি মেনে রোববার থেকে যাত্রীবাহী লঞ্চ ও সোমবার থেকে গণপরিবহন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালিক পক্ষ। শুক্রবার (২৯ মে) বিকেলে বিআরটিএ ও বিআইডব্লিউটিএ কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাদা বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। তবে ভাড়া পুনঃনির্ধারণের বিষয়ে আগামীকাল সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে। ভোক্তা অধিকার সংগঠন ক্যাব বলছেন, বাড়তি ভাড়া যাত্রীদের কাছ থেকে নেয়া যৌক্তিক হবে না।

করোনা পরিস্থিতির কারণে দুই মাসের বেশি সময় ধরে বন্ধ গণপরিবহন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চালানো যাবে- সরকারের এমন সিদ্ধান্তের পর বাস মালিক-শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। বৈঠকে ভিডিও কনফারেন্সর মাধ্যমে যুক্ত হন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

প্রায় দুই ঘণ্টা বৈঠক শেষে সোমবার থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চালুর সিদ্ধান্ত হয়। তবে বাস মালিকরা ভাড়া বাড়ানোর শর্ত দিয়েছেন। সে বিষয়ে শনিবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন সচিব।

পরিবহন সচিব নজরুল ঈসলাম বলেন, যে গাড়িতে ৫০ সিট ছিল, সেই ৫০ সিটের ধারণ ক্ষমতার ওপরে দাম নির্ধারণ ছিল, সেখানে সংগত কারণে যাত্রী থাকবে।

এদিকে বিআইডব্লিটিএর সঙ্গেও বৈঠক করেছেন লঞ্চ মালিক ও শ্রমিকরা। তারাও ভাড়া বাড়ানোর শর্তে রোববার থেকে যাত্রীবাহী লঞ্চ চালুর সিদ্ধান্তের কথা জানান।

বিআইডব্লিটিএ চেয়ারম্যান গোলাম সাদেক বলেন, রোববার থেকে যেভাবে আমাদের নৌপরিবহন চালু ছিল সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সেটা চালু রাখবে।

করোনা পরিস্থিতির সুযোগে বাড়ানো বাড়তি ভাড়া যাত্রীদের কাছ থেকে না নেয়ার দাবি জানিয়েছে ভোক্তাদের অধিকার সংগঠন-ক্যাব।

ক্যাব সভাপতি গোলাম রহমান বলেন, ভাড়ায় যদি বাড়ায় সরকার সেটা ভর্তুকি হিসেবে দিতে পারে। যারা যাত্রী তাদের কাছ থেকে ভাড়া বেশি নেয়া উচিত হবে না।

সড়ক ও নৌপথের যাত্রী ও শ্রমিকরা স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে বলেও জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *