বন্ধুর কোলেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ ,বাড়ি ফেরা হলো না উত্তরপ্রদেশের যুবকের

বিশ্বজুড়ে লকডাউন , এমনকি ভারতেও চলছে লকডাউন , বন্ধ যোগাযোগ ব্যবস্থা, আটকে রয়েছে পরিযায়ী শ্রমিকদের দল । হেঁটে বাড়ি ফিরেছেন একাধিক শ্রমিক । হেঁটে বাড়ি ফেরার পথে বন্ধুর কোলেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ এক পরিযায়ী শ্রমিক। মৃত শ্রমিকের গন্তব্য ছিল উত্তর প্রদেশে । কিন্তু মাঝ পথেই মৃত্যু হয়েছে । বাড়ি ফেরার স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল মুহূর্তে মধ্যেই ।

ওই যুবকের নাম অমৃত (২৪) ভিন রাজ্যে কাজ করতে এসে আজ লকডাউনের জন্য অর্থহীন হয়ে পড়েছে । তাই জীবন রক্ষার একটাই পথ ছিল তার বাড়ি ফেরা তাই জেদকে সম্বল করে মধ্যপ্রদেশের শিবপুরী থেকে হাঁটতে শুরু করেন অমৃত ও তার বন্ধু । শেষ পর্যন্ত এই চড়া রোদে বাড়ি ফেরার জন্য মনটা সঙ্গ দিলেও শরীর সঙ্গ ছেড়ে দেয়। তাই ক্লান্ত হয়ে তপ্ত রাস্তায় অমৃত শুয়ে পড়লেন এক বন্ধুর কোলে মাথা দিয়ে। তারপরই হঠাৎ করে সবকিছু শেষ হয়ে গেল । যদিও পুলিশের সাহায্য নিয়ে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে মৃত বলে ঘোষণা দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

পুলিশ জানিয়েছে, গুজরাটের সুরাটে কাজ করতেন এই অমৃত ও তার বন্ধু । লকডাউনের জন্য বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন । ৪ হাজার টাকা দিয়ে একটি ট্রাক ভাড়া ফিরছিলেন অমৃত ও আরও বেশ কিছু পরিযায়ী শ্রমিক ।মাঝ পথেই অসুস্থ হয়ে পড়েন অমৃত তাই তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দেওয়া হয় , কিন্তু সেই অবস্থায় তার পাশে দাঁড়িয়েছেন তার বন্ধু । তার সঙ্গে ট্রাক থেকে নেমে পড়লেন বন্ধু ইয়াকুব। তারপর থেকেই শুরু হয় দুই বন্ধুর পথচলা । কিছু দূর যাওয়ার পর খুব অসুস্থ বোধ করেন বন্ধু অমৃত । বন্ধু ইয়াকুবের কোলেই মাথা রেখে রাস্তায় শুয়ে পড়েন অমৃত।

সেই অবস্থায় ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বন্ধ অমৃত , তাদের সাহায্য করার জন্য চিৎকার করতে থাকেন ইয়াকুব। কিন্তু কেউ পাশে দাঁড়াই নি । এক স্থানীয় সেই ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে তা মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায় । এরপর খবর পেয়ে শিবপুরী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যান। পুলিশ জানিয়েছে, আমরা সেখানে গিয়ে জানতে পারি অমৃতের জ্বর হয়েছে। এমনকি রাস্তায় বমি করেছে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান প্রচন্ড রোদে হেঁটে আসার ফলেই হয়তো অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তবে করোনা কিনা তা পরীক্ষা পরেই জানা যাবে।

Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *