সরকারি ২৫শ টাকার সহায়তা তালিকায় এক ইউপি সদস্যের নম্বর ৪০ বার

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কারণে বাগেরহাটের শরণখোলায় কর্মহীন হয়ে পড়া নিম্ন মধ্যবিত্ত ও হতদরিদ্রদের প্রতি পরিবারকে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২৫০০ টাকা করে আর্থিক সহায়তার তালিকা তৈরিতে ব্যাপক অনিয়ম ধরা পড়েছে। সুবিধাভোগী ৪০ জনের নামের পাশে এক ইউপি সদস্যের মোবাইল নম্বর দেয়া হয়েছে। এছাড়াও হতদরিদ্রদের এই তালিকায় সরকারি সুবিধাপ্রাপ্ত স্বচ্ছল ব্যক্তির নামও রয়েছে। ফলে ওই তালিকা সংশোধনে মাঠে নেমেছে উপজেলা প্রশাসন।

জানা গেছে, ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে প্রস্তুতকৃত চূড়ান্ত তালিকা শরণখোলা উপজেলা পরিষদে জমা দেয়ার পরও তা যাচাই-বাছাই করতে গিয়ে এ সকল অনিয়ম ধরা পড়ার পর সমালোচলা শুরু হয়। শরণখোলা উপজেলার চারটি ইউনিয়নের মধ্যে খোন্তাকাটায় এই অনিয়মের মাত্রা একটু বেশি বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

তালিকায় সংশ্লিষ্ঠ ব্যক্তির নামের পাশে তার মোবাইল নম্বর সংযুক্ত করার বিধান থাকলেও কতিপয় ইউপি সদস্য অসৎ উদ্দেশ্যে তার নিজের নম্বরটি দিয়েছেন। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ২৫০০ টাকা করে প্রত্যেক পরিবারকে প্রদানের বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে সেই টাকা নিজের পকেটে আনতেই তারা এই অপকৌশলের আশ্রয় নিয়েছেন।

এছাড়াও প্রকৃত হতদরিদ্রদের পাশ কাটিয়ে অপেক্ষাকৃত সচ্ছল ও সরকারি অন্যান্য সুবিধাভোগীদের নামও ওই সকল ইউপি সদস্য তালিকায় দিয়ে উপজেলা প্রশাসনে জমা দিয়েছেন। চারটি ইউনিয়নের তালিকা যাচাই বাছাই করতে গিয়ে এসব অনিয়ম ধরা পড়ায় এখন উপজেলা প্রশাসনের সরকারি কর্মকর্তাদের বাড়ি বাড়ি পাঠিয়ে তালিকা সংশোধন করা হচ্ছে।

শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে প্রস্তুতকৃত তালিকায় অসঙ্গতি ধরা পড়ায় তা সংশোধনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দুস্থ ও হতদরিদ্রের নামের পাশে এক ইউপি সদস্যের মোবাইল নম্বর ৪০ জনের নামের পাশে দেয়া ছাড়াও সচ্ছল ও সরকারের অন্যান্য সুবিধাভোগ করছে এমন ব্যক্তিদের নামও তালিকায় স্থান পেয়েছে।

এ কারণে অনিয়ম ঠেকাতে সরকারি কর্মকর্তাদের দিয়ে সঠিক তালিকা করা হচ্ছে। আগামী ১৭ মে সংশ্লিষ্ট দফতরে এই তালিকা পাঠানো হবে। তলিকা প্রণয়নে অনিয়মনের সঙ্গে জড়িত ইউপি সদস্যদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *