ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়ক : প্রতি কিলোমিটারে খরচ ৮৬ কোটি

ওয়েস্টার্ন ইকোনমিক করিডরের ঝিনাইদহ-যশোর অংশের ৪৮ দশমিক ৫০ কিলোমিটার সড়ক উভয় পাশে সার্ভিস লেনসহ ৬ লেনে উন্নীত করা হবে। এতে খরচ করা হবে ৪ হাজার ১৮৭ কোটি ৭০ লাখ ১৭ হাজার টাকা। অর্থাৎ প্রতি কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণে খরচ করা হবে ৮৬ কোটি ৩৪ লাখ ৪৩ হাজার ৬৪৯ টাকা করে।

বিশাল এই অর্থের জোগান আসবে সরকারের অনুদান ও বিদেশি ঋণ থেকে। তার মধ্যে বাংলাদেশ সরকার দেবে ১ হাজার ৪৮২ কোটি ৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকা আর বিশ্বব্যাংক ঋণ হিসেবে দেবে ২ হাজার ৭০৫ কোটি ৬৫ লাখ ১৮ হাজার টাকা।

‘উইকেয়ার ফেজ-১ : ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়ক (এন-৭) উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্পটি সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ/সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদফতর বাস্তবায়ন করবে। চলতি বছরের অক্টোবর থেকে ২০২৫ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পটি যশোরের সদর উপজেলা এবং ঝিনাইদহ সদর ও কালিগঞ্জ উপজেলায় বাস্তবায়ন করা হবে। বিশাল এ খরচের প্রকল্পটি মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদন দেয়া হয়।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য হলো ওয়েস্টার্ন ইকোনমিক করিডোরের ঝিনাইদহ-যশোর অংশের ৪৮ দশমিক ৫০ কিলোমিটার সড়ক উভয় পাশে সার্ভিস লেনসহ ৬ লেনে উন্নীত করে এই করিডোরটির সার্বিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করা। দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে বেনাপোল, ভোমড়া স্থলবন্দর ও মোংলা সমুদ্রবন্দরসহ এশিয়ান হাইওয়ে, সার্ক হাইওয়ে করিডোর, বিমসটেক রোড করিডোর ও সাউথ এশিয়ান সাব-রিজিওনাল ইকোনমিক কো-অপারেশন (সাসেক) রোড করিডোরের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা। ধীরগতিসম্পন্ন যানবাহনের জন্য পৃথক লেন এবং ব্যস্ততম স্থানে ফ্লাইওভার নির্মাণ এবং ‘স্মার্ট হাইওয়ে’ নির্মাণের লক্ষ্যে অপটিক ফাইবার ক্যাবল (ওএফসি) এবং সড়ক ব্যবস্থাপনার জন্য ইন্টেলিজেন্ট ট্রান্সপোর্ট সিস্টেমস (আইটিএস) স্থাপন করা।

এসব উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে ১৫১ দশমিক ৪ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণ ও পুনর্বাসন, ৪৮ দশমিক ৫০ কিলোমিটার পেভমেন্ট নির্মাণ (এসএমভিটি লেনসহ ৬ লেন), ৬৩ দশমিক ৪২ লাখ ঘনমিটার সড়কে মাটির কাজ, ১ হাজার ৬৪৭ দশমিক ২৯ মিটারের একটি ফ্লাইওভার, ১৯৮ দশমিক ১২ মিটারের চারটি ব্রিজ, ৫৫টি ১৯৮ দশমিক ১০ মিটারের কালভার্ট, ১২টি ৪৩৮ দশমিক ৯১২ মিটারের পথচারী ওভারব্রিজ, ১০ মিটারের একটি আন্ডারপাস, নির্মাণ ও প্রকল্প বাস্তবায়ন সুপারভিশনের জন্য পরামর্শক সেবা ১৭৮৭ জনমাস, ইন্টেলিজেন্ট ট্রান্সপোর্টেশন সিস্টেস (আইটিএস) এবং অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল (ওএফসি) সিস্টেম ডিজাইনের জন্য পরামর্শক সেবা ৯৩ জনমাস, প্রজেক্ট ইমপ্লিমেন্টেশন ইউনিট (পিআইইউ) সাপোর্টের জন্য পরামর্শক সেবা ৩৬৬ জনমাস, পুনর্বাসন কাজ বাস্তবায়নের জন্য এনজিও সেবা ৫০৩ জনমাস, ফেজ-১ এর ডিজাইন রিভিউ এবং ফেজ-৩ এর ফিজিবিলিটি স্টাডি ও ডিটেইলড ডিজাইন প্রণয়নের জন্য পরামর্শক সেবা ৪৩১ জনমাস, পরিবেশগত ও সামাজিক ব্যবস্থাপনার জন্য পরামর্শক সেবা ২৭৩ জনমাস, অভ্যন্তরীণ অডিটের জন্য পরামর্শক সেবা ৭২ জনমাস, আউট সোর্সিং স্টাফ ২৩৯৪ জনমাস, প্রাইস এডজাস্টমেন্ট, ইউটিলিটি শিফ্টিং, যানবাহন ক্রয়, নির্মাণকালীন রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে।

Author: Rijvi Ahmed

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *