প্রতিদিন কুকুরটি কবরে গর্ত খুড়ে বসে থাকে! চোখে জ’ল চলে আ’সবে কারণটি জা’নলে

প্রতিদিন কুকুরটি কবরে গর্ত খুড়ে বসে থাকে! চোখে জ’ল চলে আ’সবে কারণটি জা’নলে – যখন মানুষ এবং প্রাণীদের মধ্যে ভালোবাসার বন্ড নিয়ে কথা আসে, তখন সেটা কুকুরদের সঙ্গে ভালোভাবে দেখা যায়। তাদের মৃত প্রভুদের জন্য দুঃখ কুকুরদের কাছে নতুন কিছু নয়।কিন্তু,

যখন এই বিশেষ ছবিটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পরে, তখন এর সম্বন্ধে বেশ কিছু লোক এটির গল্প জানার জন্য জিজ্ঞাসা করতে শুরু করে। এখন, এটি এখানে তুলে ধরা হচ্ছে। এটা দেখুন তার মৃত প্রভুর জন্য শ্রদ্ধা। কুকুরটির প্রভু কোন দুর্ভাগ্যবসত কারণে মারা গিয়েছিল এবং কুকুরটি

গৃহহীন হয়ে পরে, তার কাছে কোথাও যাবার জায়গা না থাকলে সে তার প্রভুর কবরকেই নিজের ঘর বানিয়ে ফেলে ।কিন্তু ঠিক এটা নয় … কুকুরটি তার প্রভুর কবরে গর্ত করতে শুরু করে এবং তার মধ্যেই আশ্রয় নেয় । প্রথমদিকে কুকুরটিকে গর্তের মধ্যে কাঁদতে দেখা যায়, যা

সাধারণত তার প্রভুর জন্যই ছিল বলে ধরা হয়। আসলে কুকুরটি কিছু লুকাচ্ছিল ।এখানে পুরো গল্প ককুরটি গর্ভবতী ছিল যখন যার প্রভু মারা যায় । কি করবে, কোথায় যাবে বুঝতে না পেরে সে কবরস্থানে তার প্রভুর কবরে একটি গর্ত খুঁড়ে নিজের থাকার জন্য আশ্রয় করেছিল,

যেখানে সে চারটি কুকুরছানার জন্ম দিয়েছিল।এটা লক্ষ্য করে। কবরস্থানের শ্রমিকরা ভ্রান্ত কুকুরের নবজাত আগত পরিবার দেখতে পায়। স্থানীয়রাও তাদের লক্ষ্য করেছিল এবং তাদের সাহায্য করার চেষ্টা করেছিল। তারা তার বিশ্বাস অর্জন করতে তাকে খাওয়ানো শুরু করল।প্রথমে

দ্বিধাগ্রস্ত ছিল …প্রথমে, কুকুরটি অচেনা কারুর থেকে খাবার গ্রহণ করতে দ্বিধাগ্রস্ত ছিল। যদিও মানুষ ঘটনাক্রমে তার মন জয় করতে সক্ষম হয়েছিলো।কুকুরকে সাহায্যের হাত বাড়ান … কুকুরদের কবরস্থান থেকে একটি সঠিক স্থানে স্থানান্তরিত করা হয়। মা কুকুরটি ভাল খাবারের

পাশাপাশি সঠিক যত্ন পেয়েছিল, যা তার শিশুদের জন্য দুধ উৎপাদন করতে সাহায্য করেছিল ।মেডিকেল পরীক্ষা। তারপর সকল প্রাণীদের চিকিৎসা দ্বারা পরীক্ষা করা হয়েছিল। টিকাকরন, কীটনাশ করা হয় এবং পরিশেষে সুস্থ কুকুরছানা নির্ধারিত হয় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *