বাংলাদেশি মেয়ে-ভারতীয় ছেলের বিয়ে, দাওয়াতে গেল হাজারো মানুষ

বিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় হলেও আনন্দভোজ হলো বাংলাদেশের কুড়িগ্রামের চর সুভারকুঠি গ্রামে। আমন্ত্রণপত্র দিয়ে এলাকাবাসীকে দাওয়াত দেয়া হয়।

মহামারির সময় মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারেননি। তাই বিয়ের টাকায় হাজারো মানুষের মুখে খাবার তুলে দিলেন বাংলাদেশি তৃষা গোমেজ।

বাংলাদেশের মেয়ে তৃষা গোমেজ সম্প্রতি বিয়ে করেছেন ভারতের ছেলে এ্যাডরিয়োটো জ্যাভিয়ারকে। এই দম্পতি অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে থাকলেও অনুষ্ঠান হয়েছে কুড়িগ্রামে।

তৃষা গোমেজের স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিতে চর সুভারকুঠি গ্রামে বাড়ি বাড়ি বিয়ের কার্ড পৌঁছে দেয় একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা। অবাক হলেও নিজ গ্রামে এমন আয়োজনের কথা শুনে তৃপ্তির হাসি ফোটে দরিদ্র গ্রামবাসীর মুখে।

বাংলাদেশের মেয়ে তৃষা গোমেজ ও ভারতের ছেলে এ্যাডরিয়োটো জ্যাভিয়ার

আয়োজনের কমতি ছিলো না কোনোকিছুতে। প্রায় এক হাজার মানুষের জন্য ছিলো মুরগি রোস্ট, ডিম এবং গরুর মাংস। সকাল এগারোটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত চলে আনন্দ ভোজ।

বিয়ের দাওয়াতে আসা এলাকাবাসী জানায়, গরীব মানুষ হলেও এমন জাকজমক বিয়ের দাওয়াত পেয়েছি এটা আনন্দের। খাবার খুবই ভালো হয়েছে, বেশ তৃপ্তি নিয়ে খাচ্ছি।

তৃষা এবং এ্যাডরিয়োটোর ইচ্ছাতে একটি নবদম্পতির জন্য তৈরি করা হয় পৃথক মঞ্চ। জানা গেছে, হারুন মিয়া ও ইয়াসমিন বেগম দম্পতি অভাবে বিয়ের অনুষ্ঠান করতে পারেননি। স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা এই দম্পতির মুখে হাসি ফোটান।

হারুন মিয়া বলেন, বিয়ে আগেই করেছি তবে অভাবের কারণে কোনো আয়োজন করতে পারিনি। আমার এই বিয়ের অনুষ্ঠান করা হচ্ছে। এটা আমার জন্য সত্যিই আনন্দের।

এমন ভিন্ন আয়োজনের বিষয়ে তৃষা গোমেজ বলেন, আয়োজনটা দেখে এত ভালো লেগেছে যা বলার ভাষা নেই, কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করার মতো ভাষা নেই আমার। আমরা কিছুই করিনি। প্রতিষ্ঠানটি সবকিছু দায়িত্ব নিয়ে আয়োজন করেছে।

Author: Rijvi Ahmed

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *