আমি চকোলেট বোমের বিশাল বড় ফ্যান ছিলাম: মধুমিতা

উৎসবের রেশ এখনও কাটেনি। দীপাবলির রোশনাইতে ইতিমধ্যেই মেতে উঠেছে টলিপাড়া। তবে অভিনেত্রী মধুমিতা সরকারের কাছে এ বছর আলোর উৎসব বলতে একরাশ নস্টালজিয়া । ‘পাখি’র মন উড়ে গিয়েছে তাঁর ভালবাসার গ্রামে। মনে পড়ছে বাজি ফাটানো, ফেলে আসা হইহুল্লোড়।

চকোলেট বোমের ‘বিশাল বড় ফ্যান’ মধুমিতা। তেমনটাই জানিয়েছেন অভিনেত্রী। পর্দার শান্তশিষ্ট পাখি অনায়াসেই এক সময় চকোলেট বোম ফাটাতেন। তবে এখন সে সব অতীত। স্মৃতির পাতা উল্টে অভিনেত্রী বললেন, “কলকাতায় কখনও চকোলেট বোম ফাটাইনি। গ্রামে অনেক বড় জায়গা ছিল, সেখানে আমরা চকোলেট বোম ফাটাতাম।”

তবে আতসবাজির মায়া পুরোপুরি ত্যাগ করতে পারেননি মধুমিতা। এখনও বাজির রোশনাই মন কাড়ে অভিনেত্রীর। তবে পরিবেশের কথা মাথায় রেখে কম ধোঁয়া এবং শব্দ হয়, এমন বাজি পোড়াতে ভাল লাগে তাঁর। কিন্তু এ বছর এ সব কিছুই ব্রাত্য। তবে কি দীপাবলি উদ্‌যাপন করবেন না মধুমিতা?

অভিনেত্রী জানালেন, নিজের মতো করে এ বছর আলোর উৎসব কাটাবেন তিনি। ব্যস্ত রুটিন থেকে সময় বের করে নিয়ে সিনেমা দেখবেন, পড়াশোনাও করবেন পাশাপাশি। তার মধ্যে থেকেই সময় বের করে পুজো করবেন, মোমবাতি এবং প্রদীপ জ্বালিয়ে আলোকিত করবেন ভালবাসার বাড়িকে। পরিবেশের কথা মাথায় রেখে অনুরাগীদেরও আতসবাজি ছাড়াই আলোর উৎসবে মেতে ওঠার অনুরোধ জানালেন মধুমিতা।

কিছুদিন আগেই পরিচালক মৈনাক ভৌমিকের ছবি ‘চিনি’র শ্যুট শেষ করলেন মধুমিতা। ব্যস্ততার মধ্যেও ছিমছাম ভাবে আলোর উৎসবকে নিজের মতো করে উদযাপন করবেন অভিনেত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *