কিস্তি চাপ সহ্য করতে পারে জীবন গেল মুদি দোকানির গর্ভবর্তী স্ত্রীর

বগুড়ায় এনজিও থেকে নেয়া ঋণের কিস্তির চাপ সহ্য করতে না পেরে গর্ভবতী স্ত্রী ও শিশুসহ আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন এক মুদি দোকানি। পরে তাদের হাসপাতালে ভর্তির পর গর্ভবতী বুলবুলি বেগম (২২) মারা যান।

বুধবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। বুলবুলি বেগম বগুড়া শহরতলির নওদাপাড়া গ্রামের মুদি দোকানি মহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

জানা গেছে, মহিদুল ইসলাম করোনা মহামারির মধ্যে কর্মহীন হয়ে পড়লে স্ত্রীর নামে বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে গ্রামে মুদির দোকান দেন। কিন্তু দোকানের বেচাকেনা দিয়ে পাঁচ বছর বয়সী এক সন্তান, গর্ভবতী স্ত্রীকে নিয়ে সংসার চালানো কঠিন হয়ে পড়ে। একদিকে সংসার চলে না, অন্যদিকে বিভিন্ন এনজিওর কিস্তির চাপে দিশেহারা হয়ে পড়ে পরিবারটি।

মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) রাতে মহিদুল তার স্ত্রী, সন্তানকে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট (কীটনাশক ট্যাবলেট) সেবন করানোর পর নিজেও তা সেবন করলে অসুস্থ হয়ে পড়েন। প্রতিবেশীরা বিষয়টি টের পেয়ে তাদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার বিকেলে গর্ভবতী বুলবুলি মারা যান।

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (ছিলিমপুর) পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এস আই) আব্দুল আজিজ মণ্ডল জানান, বুলবুলির স্বামী ও সন্তান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *