পোশাক নিয়ে ফেসবুকে ঝড় তুললেন পাখি, ব্যাপক সমালোচনা

পাখি নামে এই দেশে ড্রেস নিয়ে কত কা’ণ্ডই না ঘটে গেছে। মানে ঈদ উপলক্ষে পাখি ড্রেস, এটা উপলক্ষে পাখি চুড়ি। পাখি নামটার নানামূখী ব্যবহার শুরু হয় শুধুমাত্র কলকাতার সিরিয়ালের একটি কল্যাণে। তবে এবার সত্যিকারের পাখি মানে মধুমিতাই পোশাকের কারণে সমালোচনার তীরে বিদ্ধ হয়েছেন।

সম্প্রতি মধুমিতা লাল রঙের জামা পরে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। লিখেছেন, ‘লালটুকু থাকুক না!❤️।’ আর এই ছবি নিয়েই তোলপাড়। পাখি চরিত্রটিকে বাংলাদেশের মানুষ ব্যপকভাবে গ্রহণ করেছে, আর এ কারণেই এই ছবিতে তারা নেতিবাচক ও ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন।

একজন নেটিজেন লিখেছেন, বিশ্রী পোশাক পড়ে তাড়াতাড়ি ভাই’রাল হওয়া যায়, নিজের আত্ম সম্মান বজায় রেখে ভাই’রাল হতে একটু দেরি লাগে, দেরি হলেও নিজের সম্মানটা সেভ থাকে।’ এমন অজস্র বাক্যবাণে পাখি ওরফে মধুমিতাকে আক্রমণ করা হয়েছে। একজন লিখেছেন, ‘কোনো নায়কের কাছে চান্স পায় না তো!😂 তাই আর কি খোলামেলা ড্রেস পড়ে আকর্ষণ করার বৃথা চেষ্টা!’

মধুমিতা সরকার
তবে এসব নিয়ে মা’থা ঘামননি পাখি। তিনি কোনো মন্তব্যের উত্তর দেননি। মন্তব্যে সমালোচনা থাকলেও এতে ‘লাভ’ প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন ৩০ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী। হাসির প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন ১৮ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারী। মধুমিতার পোস্ট করা ছবিতে এক লাখের অধিক প্রতিক্রিয়া এসেছে।

‘পাখি’ একটি সরল, হাসিখুশি,সংসারী মেয়ে। সে তার পরিবারকে খুবই ভালোবাসে। “অরণ্য সিংহ রায়” একজন ব্যবসায়ী। সে ভালোবাসায় বিশ্বা’স করে না। তবে সে তার ‘অনু’ দিদিকে খুব ভালোবাসে। ঘটনাচক্রে অরণ্য’র ভাইয়ের সাথে পাখি’র বোনের বিয়ে হয়। এর সূত্র ধরে অরণ্য আর পাখির মধ্যে বিয়ে হয়। তাদের মধ্যে সমস্যা সৃষ্টি করার চেষ্টা করে অনু’দির বর কৃষ্ণেন্দু ও অরণ্য এর পুরোনো বান্ধবী পামেলা। কারণ কৃষ্ণেন্দু পাখিকে আর পামেলা অরণ্যকে পছন্দ করে। তবে পাখি আর অরণ্য সব বাধা পেরিয়ে একে অ’পরকে প্রচণ্ড ভালোবাসতে শুরু করে। তারা পুনর্বিবাহের সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু বিয়ের সময় অরণ্য’র গু’লি লাগে।

‘বোঝেনা সে বোঝেনা’ নামের সিরিয়ালটি স্টার জলসায় সম্প্রচারিত জনপ্রিয় টিভি ধারাবাহিক। এই ধারাবাহিকে অ’ভিনয় করে আলোচনায় আসেন মধুমিতা সরকার। পাখি চরিত্রটি মূলত মধুমিতাই পর্দার রূপ। পাখি হিসেবে বেশ জনপ্রিয় হন তিনি। পাখির আড়ালে তার আসল নামটাই ঢেকে গিয়েছিল।

হিন্দি ধারাবাহিক ইস পেয়ার কো কেয়া নাম দু ধারাবাহিকের পুনঃনির্মাণ এটি। বাংলা ভাষার এই ধারাবাহিকটি ভা’রতের পাশাপাশি বাংলাদেশেও ব্যাপক জনপ্রিয় হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *