বঙ্গোপসাগরের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের আবহাওয়া অধিদফতর ও এ-সংক্রান্ত সংস্থা বলে আসছে, বঙ্গোপসাগরের দিকে ধেয়ে আসতে পারে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান । বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, সেই আম্ফানের এখনও সৃষ্টি হয়নি। আগামী দু-তিনদিনের মধ্যে সৃষ্টি হতে পারে এই ঘূর্ণিঝড়। আর বাংলাদেশে এর প্রভাব পড়ার সম্ভাবনাও আপাতত কম।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) সকালে আবহাওয়াবিদ মো. শাহিনুর ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, ‘আম্ফান এখনও সৃষ্টি হয়নি। এটা সৃষ্টি হতে আরও দু-তিনদিন সময় লাগতে পারে। এর প্রভাব বাংলাদেশে পড়ার সম্ভাবনা আপাতত কম। তবে এখনও সুনির্দিষ্ট কিছু বলা যাচ্ছে না। দু-তিনদিন পর বিস্তারিত বলা যাবে।’

বেশকিছু দিন ধরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃ্ষ্টি হচ্ছে। আম্ফান সৃষ্টি ও বাংলাদেশের এর অল্প-বিস্তর প্রভাব পড়ার আগে বর্তমান বৃষ্টির হওয়ার পরিমাণ কিছুটা কমে আসতে পারে।
ঘূর্ণিঝড়

এ বিষয়ে শাহিনুর ইসলাম বলেন, ‘বর্তমান যে বৃষ্টির প্রবণতা কমে তা আসতে পারে, তবে পুরোপুরি থামবে না। পরিমাণ একটু কমে আসতে পারে।’

এর আগে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ওয়ান ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে জানায়, এপ্রিলের শেষে বা মে মাসের শুরুতেই বঙ্গোপসাগরে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’। তবে কোথায় আছড়ে পড়তে পারে ওই আম্ফান, তা স্পষ্ট নয়। এই তথ্য জানানো হয়েছে।

আম্ফান নামটি দিয়েছে থাইল্যান্ড এবং নামটি ২০১৯-এর ঘূর্ণিঝড় তালিকার শেষ নাম। ‘নর্দান ইন্ডিয়ান ওশেন সাইক্লোন’-এর নামগুলো আটটি দেশ পর্যায়ক্রমে রাখে। এই পর্যায়ক্রমগুলো হলো-বাংলাদেশ, ভারত, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, ওমান, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও থাইল্যান্ড। সেই পর্যায়ক্রমে আট নম্বর তালিকায় শেষ নামটি হলো আম্ফান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *