অবশেষে জানা গেলো কবে থেকে চলবে গণপরিবহন

দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দিন দিন বেড়েই চলছে। সর্বশেষ গতকালের (২৭ এপ্রিল) তথ্য অনুসারে আরও ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ১৫২ জন। একদিনে নতুন করে করোনা সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছেন ৪৯৭ জন। এখন পর্যন্ত করোনায় মোট শনাক্ত হলেন পাঁচ হাজার ৯১৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯ জন এবং এখন পর্যন্ত দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন ১৩১ জন।সোমবার (২৭ এপ্রিল) বেলা ২টা ৩০ মিনিটে দেশের কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সার্বিক পরিস্থিতি জানাতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিন অনলাইনে প্রচারিত হয়। বুলেটিনে ভিডিও কনফারেন্সে এই তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৪ হাজার ১৯২টি, পরীক্ষা করা হয়েছে ৩ হাজার ৮১২টি নমুনা; এর মধ্যে শনাক্ত হয়েছে ৪৯৭ জন। এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত ৫ হাজার ৯১৩ জন। এখন পর্যন্ত মোট পরীক্ষা ৫০ হাজার ৪০১টি।

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা প্রদান করতে গিয়ে চিকিৎসক, নার্স, মেডিকেল টেকনােলজিস্টসহ সেবাদানকারীরা আশঙ্কাজনকভাবে করােনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) তথ্য অনুসারে, সোমবার (২৭ এপ্রিল) পর্যন্ত বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ২৯৫ জন চিকিৎসক, ১১৬ জন নার্স ও ২৪৯ জন অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীসহ চিকিংসাপেশায় নিয়ােজিত মােট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬০ জন।এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সাধারণ ছুটি বাড়ায় দেশব্যাপী গণপরিবহন চলাচলের ওপর দেয়া নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়িয়ে ৫ মে পর্যন্ত বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে।গত শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

আগের মতো জরুরি পরিষেবাসমূহ, খাদ্যদ্রব্য, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য, জ্বালানি, ওষুধ, ওষুধশিল্প ও চিকিৎসা বিষয়ক সামগ্রী পরিবহন, কৃষিপণ্য, সার ও কীটনাশক, মৎস্য এবং প্রাণিসম্পদ খাতের দুগ্ধ ও দুগ্ধজাত পণ্য, শিশুখাদ্য, জীবনধারণের মৌলিক উপাদান উৎপাদন ও পরিবহন, গণমাধ্যম ও ত্রাণবাহী পরিবহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে বলেও জানান সচিব।করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার প্রথম ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করে। ছুটির মধ্যে গণপরিবহন চলাচলও বন্ধ ঘোষণা করা হয়।পরে পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় ছুটি আরও চার দফায় আগামী ৫ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়। একই সঙ্গে গণপরিবহন চলাচলের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদও বাড়ছে।এদিকে, অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সী‌মিত আকা‌রে পোশাক কারখানা খোলা হ‌য়ে‌ছে। আগামী ২ মে থেকে পর্যায়ক্রমে সব কারখানা চালু করা হবে। ত‌বে শ্রমিকদের এখনই গ্রাম থেকে না ফেরার পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ)।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) রাতে এক ভিডিও বার্তায় সংগঠনটির প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম এ কথা জানান।অপরদিকে, চাকরি বাঁচাতে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে নিজ নিজ কর্মস্থলে ছুটছেন শ্রমজীবী মানুষরা। সকাল থেকে শিমুলিয়া ঘাটে শ্রমজীবী মানুষের ঢল দেখা গেছে। তবে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় শিমুলিয়া ঘাট থেকে ঢাকা বা নারায়ণগঞ্জে যেতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে তাদের। অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে বিভিন্ন যানবাহন পাল্টে কর্মস্থলে ছুটছেন তারা।মাওয়া নৌপুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম জানান, সকাল থেকে শ্রমজীবী মানুষকে ফেরিতে নদী পার হতে দেখেছি। তিনটি ফেরিতে মানুষের চাপ বেশি ছিল। সব মিলিয়ে আনুমানিক দুই হাজার শ্রমজীবী মানুষ নদী পার হয়ে কর্মস্থলের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। কাঁঠালবাড়ী ঘাটে সেনাবাহিনী ও পুলিশ রয়েছে। তারা তাদের পরিচয় নিশ্চিত হয়ে ফেরিতে তুলে দিয়েছেন বলে জানতে পেরেছি। শিমুলিয়া ঘাটে কোনও গণপরিবহন না থাকায় বিপাকে পড়েছেন শ্রমজীবীরা। বেশি ভাড়ায় তারা মিশুক ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা করে গন্তব্যে রওনা দিচ্ছেন। কেউ যাচ্ছেন পিকআপ ভাড়া করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *