যুবককে সবার সামনে জুতা দিয়ে পিটিয়ে উচিত শিক্ষা দিলেন নারী

মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে একটি ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মীর বিরুদ্ধে এক নারী এনজিও কর্মীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠেছে। ওই ঘটনা সালিশের মাধ্যমে মিমাংসা হলেও অভিযুক্ত নিরাপত্তা কর্মীকে সবার সামনে ওই নারী নিজের পায়ের স্যান্ডেল দিয়ে পিটিয়েছেন।

নিরাপত্তাকর্মী মো. দুলাল মিয়াকে ব্যাংকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। তিনি জেলার শিবালয় উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের জিলাল উদ্দিনের ছেলে।

ভুক্তভোগী নারী জানান, তিনি একটি বেসরকারি সংস্থায় (এনজিও) মাঠ পর্যায়ে চাকরি করেন। গত ২৯ অক্টোবর বিকেলে ব্যক্তিগত কাজে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক হরিরামপুর উপজেলা শাখায় যান। কাজ শেষে বিকাল সাড়ে ৪ টার সময় সিঁড়ি দিয়ে নামার সময় ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী দুলাল মিয়া পথরোধ করে জোড়পূর্বক তার শরীরের স্পর্শকাতর জায়গায় হান দেন ও যৌন নিপীড়ন করেন। প্রথমে বিষয়টি লোক লজ্জ্বার ভয়ে চেপে গেলেও পরে স্থানীয় এক গণমাধ্যমকর্মী ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুদুর রহমানকে জানান। এ নিয়ে রোববার দুপুরে ব্যাংকের ব্যবস্থাপক জামাল উদ্দিনের কক্ষে সালিশি বৈঠক হয়। বৈঠকে ভুল স্বীকার করে নিরাপত্তাকর্মী দুলাল মিয়া তার পা ধরে মাফ চান। পরে উপস্থিত সবার সামনেই অভিযুক্তকে পায়ের স্যান্ডেল দিয়ে পেটানো হয়।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুদুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী নারী পর্দানশীল। ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মীকে চাকরিচ্যুত করা ও মাফ চাওয়ায় ভুক্তভোগী নারী মামলা করেননি।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কৃষি ব্যাংক হরিরামপুর উপজেলা শাখার ব্যবস্থাপক মো. জামাল উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। এটি মেনে নেওয়া যায় না। ভুল স্বীকার করে নিরাপত্তাকর্মী দুলাল মিয়া সবার সামনে ওই নারী এনজিও কর্মীর পা ধরে মাফ চেয়েছেন। এসময় তাকে জুতাপেটা ও মারধর করা হয়। সেই সঙ্গে দুলাল মিয়াকে ব্যাংকের নিরাপত্তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *