এক তরুণের সচেতনতায় বাঁচল ৭৫ প্রাণ

ঘটনা বৃহস্পতিবার ভোরের। মুম্বাইয়ের ডোম্বিভিলির কোপার এলাকায়। নিশুতি রাতে ৪০ বছরের এক পুরনো বাড়িতে বসে ওয়েবসিরিজ দেখছিলেন তরুণ কুনাল মোহিত। আচমকা বুঝতে পারেন যে, দালানটি ধসে পড়তে শুরু করেছে। তৎক্ষণাৎ একে একে ভবনের ১৮ পরিবারের সবাইকে ডেকে তোলেন। বেঁচে যায় ৭৫টি প্রাণ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘটনাটি ভোর সাড়ে ৪টার দিকের। ওই বাড়ির সবাই তখন গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন। আচমকা কুনালের আতঙ্কিত গলার ডাক শুনে ঘুম ভেঙ্গে সবাই যখন একে একে নিচে নেমে নিরাপদে আশ্রয় নেন, এর কিছুক্ষণ পরই পুরনো ওই বাড়িটি মুহূর্তেই ধসে পড়ে।

সংবাদমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে কুনাল জানান, ওইদিন ভোর ৫টার সময় দুর্ঘটনাটি ঘটে তখন তিনি জেগে। এক একা বসে ওয়েবসিরিজ দেখছিলেন। আচমকা তার রান্না-ঘরের একাংশ ভেঙে পড়ে। বিষয়টি খেয়াল করে বিপদ আঁচ করতে পেরে মুহূর্তের মধ্যেই বাড়ির বাসিন্দাদের জাগিয়ে তোলেন।

আরও জানা গেছে যে, বাড়িটির অবস্থা যে বিপদজনক, তা আগে থেকেই জানতেন বাসিন্ধারা। সাবধান করে দিয়েছিল স্থানীয় কর্তৃপক্ষও। তা সত্ত্বেও সেখানে বসবাস করছিলেন তারা। ঘটনার পর এখন হিরো বনে গেছেন কুনাল। কারণ তার সৌজন্যেই তো বেঁচেছে এত প্রাণ। প্রত্যেকেই তাই কুনালের প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *