এই ৩ নামের মানুষেরা অতিমাত্রায় চালাক! এদের থেকে দূরে থাকুন

প্রবাদে প্রচলিত যে, ‘যেমন নাম তেমন কাম’, এই কথাটি কিন্তু পুরোপুরি সত্য। কেননা নামের সাথে এক বিশাল সর্ম্পক জড়িয়ে রয়েছে।

নামের অক্ষর দিয়ে মানুষ একটু হলেও চেনা যায়। মানুষটি কেমন, তার স্বভাব, চরিত্র কেমন, তার মধ্যে কতটুকু জটিলতা রয়েছে তা কিন্তু বোঝা যায়।

মোট কথা নামের মধ্যে দিয়ে মানুষের মনের অবস্থা, বুদ্ধিমত্তা, চরিত্রসহ আরও অনেক কিছু প্রকাশ পায় নামের মধ্যে দিয়ে। এটি আমাদের কথা নয় এটি জ্যেতিষশাস্ত্রানুসারে নিম্নে আলোচনা করা হলো। একজন মানুষের নামের মধ্যে দিয়ে কিকি প্রকাশ পায়।

ডি (D): যাদের নামের অক্ষর ডি দিয়ে শুরু হয় তারা অতিমাত্রায় চালাক প্রকৃতির হয়ে থাকে। এই নামের মানুষেরা যদি মনে করেন কোন জিনিস তারা নেবেন তাহলে এরা সেই জিনিস যে কোন উপায়ে নিয়ে ছাড়েন। মোটকথা, নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে এরা ন্যায় অন্যায় কোন কিছু

মানেন না। কেননা নিজের ইচ্ছাটাকেই এরা বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। প্রচুর পরিশ্রম করা সত্ত্বেও এদের অভাব অনটন সব সময়ই লেগে থাকে। তাই বেশিরভাগ সময় এরা অর্থাভাবে কাটে। এরা যতক্ষণ না নিজের লক্ষ্যে পৌঁছায় ততক্ষণ এরা থামেনা। তাাই এরা অনেকটা ঠকবাজ প্রকৃতির হয়ে থাকে নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য যে কোন কাজ করতে পারে।

টি (T): টি নামের মানুষেরাও অনেক সুক্ষ্মবুদ্ধি ও স্থির প্রকৃতির হয়ে থাকে। এদের তর্ক শক্তিও খুব ভালো হয়। এই সকল মানুষরা মিডিয়া, ওকালতি ও প্রশাসনিক ক্ষেত্রে খুবই নাম ডাক পেয়ে থাকেন। তবে প্রেমের দিকে এরা খুবই কাঁচা প্রকৃতির হয়ে থাকে। তাই বলে এরা যে রোমান্টিক নয় তা কিন্তু নয়। এরা ভীষন রোমান্টিক রকমের মানুষ হয়ে থাকে।

এরা সহজে নিজের মনের ভাব ব্যক্ত করতে পারে না। এদের প্রেমের সবচেয়ে বড় বাধা হলো নিজের বুদ্ধিমত্তা। তবে এরা খুবই চিন্তশীল প্রকৃতির হয়ে থাকে। সাথে ন্যায় পরায়ণও হয়ে থাকে। এদর মাঝে এক অদ্ভুত ক্ষমতা রয়েছে, এরা যেকোন পরিবেশে নিজেকে সহজে মানিয়ে নিয়ে চলতে পারে। ফলে কোন অবস্থায় এরা বিব্রতবোধ করে না। এই নামের মানুষদের সাথে মেশার সময় সর্তক থাকুন।

এইচ (H): যাদের নামের শুরুতে এইচ অক্ষর থাকে এরা অত্যন্ত চাপা স্বাভাবের হয়ে থাকে। শুধু চাপা স্বভাবেরই নয়; এরা অনেকটা সংবেদনশীল হয়ে থাকে। এরা নিজের মনের কথা কারোর সামনে প্রকাশ করতে চায় না। নিজের গোপন কথা এরা নিজেরাই গোপন রাখতে পছন্দ করে। আনন্দে বা দুঃখে এরা কাউকে কখনো কিছু বলেনা। নিজের মান সম্মান নিয়ে এরা খুবই সচেতন। কারো প্রতি ভালোবাসা সহজে ব্যক্ত করে না এরা। রাজনীতিতে এর খুবই সাফল্যলাভ করে কারণ একটাই এই নামের মানুষেরাও অতিমাত্রায় চালক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *