সোনার দাম ভরিতে বাড়ছে ২,৪৫০ টাকা

সোনার দাম বাড়ানো নিয়মিত ঘটনায় পরিণত করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি। এ ক্ষেত্রে তাদের বড় অজুহাত হচ্ছে আন্তর্জাতিক বাজার। তবে এবার বিশ্ববাজারে দর না বাড়লেও দেশে ঠিকই সোনার দাম ভরিতে ২ হাজার ৪৫০ টাকা বাড়িয়েছে তারা। এতে ভালো মানের, অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের এক ভরি সোনার অলংকার কিনতে লাগবে ৭৬ হাজার ৪৫৮ টাকা।

কাল শুক্রবার সকালে উঠে যাঁরা সোনা কিনতে যাবেন, তাঁদের এই নতুন দরেই তা কিনতে হবে। বাংলাদেশে এমনিতেই সোনা বিনিয়োগের বড় কোনো মাধ্যম নয়। অন্যান্য দেশের মতো স্বর্ণ কেনাবেচার বন্ড মার্কেটও নেই। এখানে গয়নার বাজারই সোনার চাহিদা নির্ধারণ করে। গয়নাপ্রেমীদের জন্য এটা দুঃসংবাদই।

সর্বশেষ ১১ সেপ্টেম্বর সোনার দাম ভরিতে ১ হাজার ৭৫০ টাকা বাড়িয়ে ছিল জুয়েলার্স সমিতি। আজ বৃহস্পতিবার নতুন করে সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্তের পেছনে সমিতির নেতারা করোনার কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক সংকট, আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ, চীন-যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে ইউএস ডলার দুর্বল হওয়া, তেলের দরপতন ও পর্যাপ্ত আমদানির অভাবে বুলিয়ন মার্কেটে মূল্য বৃদ্ধি পাওয়াকে অজুহাত হিসেবে দেখিয়েছেন।

দাম বাড়ার কারণে কাল থেকে ২২ ক্যারেটের এক ভরি সোনার অলংকার কিনতে লাগবে ৭৬ হাজার ৪৫৮ টাকা। এ ছাড়া ২১ ক্যারেট ৭৩ হাজার ৩০৮ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৬৪ হাজার ৫৬০ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির এক ভরি সোনার অলংকার কিনতে ৫৪ হাজার ২৩৮ টাকা লাগবে গ্রাহকদের।

আজ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত প্রতি ভরি ২২ ক্যারেট সোনা ৭৪ হাজার ৮ টাকা, ২১ ক্যারেট ৭০ হাজার ৮৫৯ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৬২ হাজার ১১১ টাকায় এবং সনাতন পদ্ধতির সোনা বিক্রি হয়েছে ৫১ হাজার ৭৮৮ টাকায়। কাল থেকে ২২, ২১, ১৮ ক্যারেট ও সনাতন পদ্ধতির সোনার দাম ভরিতে ২ হাজার ৪৫০ টাকা বাড়বে।

কয়েক মাস ধরেই মূলত সোনার বাজার অস্থির। গত ৫ আগস্ট বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স (৩১.১০৩৪৭৬৮ গ্রাম) সোনার দাম ২ হাজার ডলার ছুঁয়ে যায়। তখনই জুয়েলার্স সমিতি দেশের বাজারে ভরিতে ৪ হাজার ৪৩৩ টাকা বৃদ্ধির ঘোষণা দেয়। তাতে প্রতি ভরি সোনার দাম ৭৭ হাজার ২১৬ টাকায় দাঁড়ায়। এটিই দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ দাম।

অবশ্য ১০ সেপ্টেম্বর দেশের বাজারে সোনার দাম যখন ভরিতে ১ হাজার ৭৫০ টাকা বৃদ্ধি পায়, তখন বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্সের দাম ছিল ১ হাজার ৯৪৫ ডলার। গত কয়েক দিনে বিশ্ববাজারে সোনার দামে খুব একটা উত্থান–পতন হয়নি। আজ রাত পৌনে ১০টায়ও বিশ্ববাজারে সোনার দাম ছিল ১ হাজার ৯৪৪ ডলার ৯০ সেন্ট। তারপরও দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জুয়েলার্স সমিতি।

জানতে চাইলে জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি এনামুল হক খান প্রথম আলো বলেন, চাহিদার তুলনায় সোনার সরবরাহ কম। বর্তমানে ব্যাগেজ রুলসের মাধ্যমে অল্প কিছু সোনা আসছে, তা–ও কেবল দুবাই ও সিঙ্গাপুর থেকে। দিরহাম ও সিঙ্গাপুরের ডলারের বিপরীতে টাকা দুর্বল হওয়ায় সোনার দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছি।

Author: Rijvi Ahmed

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *