করোনার ওষুধে হু-এর বিষ মিশিয়ে দেয়ার প্রস্তাবের খবরে তোলপাড়

আফ্রিকা মহাদেশের বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাস নিয়ে ছড়ানো হচ্ছে নানা রকম বিভ্রান্তিকর তথ্য। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অনলাইন ব্যবহার করে এমন অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসি।

একটি হার্বাল টনিক করোনা ভাইরাস সারিয়ে তুলতে পারে বলে দাবি করেছিলেন মাদাগাস্কারের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রি রাজোয়েলিনা। মূলত এই দাবিকে ঘিরে ভিত্তিহীন একটি ষড়যন্ত্র তত্ত্ব ছড়িয়ে গেছে।

কভিড অর্গানিক্স নামে চা জাতীয় ওষুধটি করোনার চিকিৎসায় আফ্রিকাজুড়ে ইতিমধ্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তবে এই ওষুধ নিয়ে আপত্তি জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এরপর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে যে, এই হার্বাল টনিকে গোপনে বিষ মেশানোর প্রস্তাব দিয়েছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

এসব পোস্টে বলা হয়, অ্যান্ড্রি রাজোলিয়ানেকে সংস্থাটির প্রেসিডেন্ট প্রস্তাব দেন যে, হার্বাল টনিকে বিষ মেশালে তাকে মোটা অংকের অর্থ দেয়া হবে।

এই ভিত্তিহীন ষড়যন্ত্র তত্ত্বের মাধ্যমে বলা হচ্ছিল, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রমাণ করতে চায় যে আফ্রিকার দেশগুলো কখনোই কভিড-১৯ এর নিজস্ব ওষুধ খুঁজে বের করতে পারবে না, কোনো দিন আত্মনির্ভরশীল হতে পারবে না।

এই ষড়যন্ত্র তত্ত্ব প্রথম দেখা গিয়েছিল ফরাসি ভাষায় লেখা একটি ফেসবুক পোস্টে। এই ফেসবুক একাউন্টটি চালানো হচ্ছিল অ্যাংগোলা এবং ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গো থেকে। এরপর তানজানিয়ার দুটি সংবাদপত্র ১৪ মে এ নিয়ে প্রতিবেদন করে। একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, প্রেসিডেন্ট রাজোয়েলিনা নাকি ফ্রান্স টুয়েন্টি ফোর নামে একটি টিভি চ্যানেলে দেয়া সাক্ষাৎকারে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছ থেকে এরকম প্রস্তাব পাওয়ার কথা বলেছেন।

এই ভুয়া খবরটি আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে অনলাইনে এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে শেয়ার হয়।

এটা সত্যি যে ফ্রান্স টুয়েন্টি ফোরে গত ১১ মে মাদাগাস্কারের প্রেসিডেন্ট একটি সাক্ষাৎকার নেয়। কিন্তু এই সাক্ষাৎকারের কোথাও তিনি একবারও বলেননি যে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তাকে এরকম অর্থ দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বিবিসিকে জানিয়েছে, এই খবরটি একেবারেই ভুয়া। আর মাদাগাস্কারের সরকারও এই খবর নাকচ করে দিয়েছে। দেশটির সরকারের একজন মুখপাত্র লোভা রানোরামোরো বলেন, কভিড-১৯ এর এই অর্গানিক ওষুধ ছাড়ার পর থেকে প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রি রাজোয়েলিনাকে জড়িয়ে অনেক মিথ্যে কথা ছড়ানো হয়েছে।

কভিড অর্গানিক্স নামের হার্বাল টনিকটি মাদাগাস্কারে এখনো তৈরি হচ্ছে। এটি সেদেশে এবং আফ্রিকার অন্যান্য দেশে ব্যবহৃত হচ্ছে। কিন্তু এটি যে করোনার চিকিৎসায় কাজ করে এমন প্রমাণ এখনো নেই।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, তারা সনাতনী চিকিৎসা পদ্ধতিতে উদ্ভাবিত যে কোনো কিছুকে স্বাগত জানায়, কিন্তু অপরীক্ষিত কোনো চিকিৎসার ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

Author: Online Editor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *