৮ বছরের জমানো স্বপ্ন পুড়ে ছাই, নিজের জীবন শেষ করে দেবার কথা ভাবছেন রিকশাচালক

একটু একটু করে ৮ লাখ টাকা জমিয়েছিলেন রিকশাচালক খোকা মিয়া। কিন্তু মুহূর্তের মধ্যেই ছাই হয়ে গেল ৮ বছরের জমানো ‘স্বপ্ন’। টাকার শোকে বৃদ্ধ এ রিকশাচালক এখন শোকে পাথর।
সোমবার দিনগত রাত পৌনে ১২টার দিকে অগ্নিকাণ্ডে ৮ বছরের জমানো এতগুলো টাকা হারানোর শোকে পাথর ৭০ বছর বয়সী এ রিকশাচালক। দু’বেলা দু’মুঠো খেয়ে-পরে ভালো থাকার আশায় ৮ বছর আগে রাজধানীর মহাখালী সাততলা বস্তিতে আসেন খোকা মিয়া। তার পৈত্রিক নিবাস শেরপুরের নখলা থানার গজারিয়া গ্রামে।

খোকা মিয়া বলেন, এক পোলা, তিন মাইয়া ও পরিবার নিয়া এই বস্তির দুই রুমে থাকতাত। গুলশান-নিকেতন এলাকায় রিকশা চালাই; যা কামাই হয়, কিছুই খাই, বাকিটা জমাই। তিন মাইয়া গার্মেন্টসে চাকরি করে, তাদের টাকাও এখানে ছিল।

অগ্নিকাণ্ডের সময় একটা টং দোকানে বসে চা খাচ্ছিলেন খোকা মিয়া। তার ছেলে-মেয়েরা ঘুমেই ছিল। আগুন-আগুন চিৎকার শুনে তারা ঘর থেকে বেরোলেও, ৮ বছরের জমানো স্বপ্ন পুড়ে চাই!

খোকা মিয়া বলেন, টাকার কথা বইলা আর কী হইবো? টাকা তো আর ফেরত আইবো না। আর আমারে কেউ টাকা ফিরায়াও দিবো না। আমি মূর্খ মানুষ। আমিতো লেখাপড়া জানি না, ভাবছিলাম ব্যাংকে টাকা রাখলে কেউ যদি আমার টাকা প্রতারণা কইরা নিয়া যায়!

টাকার শোকে আত্মহত্যার চিন্তাও নাকি করেছিলেন রিকশাচালক খোকা মিয়া। কিন্তু এটা তারও মাথায় এলো, ‘আমার পরিবারের দেখভাল করবো কে?’

Author: Rijvi Ahmed

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *