চিন্তায় বিশেষজ্ঞরা: ভূমিকম্পের পর গভীর সমুদ্রের দৈত্যাকার মাছ চলে এল ডাঙায় !

গত ম’ঙ্গলবার ভ’য়ানক ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে ফিলিপিন্সের মাটি। রিখটার স্কেলে তীব্রতা ছিল ৬.৬, যার ফলে বেশ ক্ষ’তি হয় ফিলিপিন্সের। তবে এই ভূমিকম্পের পরেই এক আশ্চর্য ঘটনা ঘটে স্যান্টা মোনিকা গ্রামে।

ভূমিকম্পের ঘণ্টা খানেক পরেই এক বিশাল আয়তনের ওপাস মাছ দেখতে পান স্যান্টা মোনিকার এক জে’লে। তিনি মাছ ধরতে গিয়েছিলেন সমুদ্রে। ভূমিকম্পের সময় তিনি সমুদ্রতেই ছিলেন। সমুদ্র সৈকতের কাছে এই বিশালাকার মাছটিকে তিনি দেখতে পান। একেবারে ডাঙার কাছে চলে আসে এই মাছ। এই বিশাল মাছটি চড়ে চলে আসায় আর মাঝ সমুদ্রে ফিরতে পারে না। চড়েই আট’কে থাকে সে। স্যান্টা মোনিকার জে’লে আরম্যান্ডো আমোস প্রথম এই মাছটিকে উ’দ্ধার করেন। এর পরেই খবর হয় এত বড় মাছ ভেসে আসার কথা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই মাছ সাধারণত মাঝ সমুদ্রে থাকে। গভীর জলের মাছ। এদের শরীরে গরম র’ক্ত বয়ায় এই মাছটিকে উষ্ণ র’ক্তের মাছও বলা হয়। এই মাছ সমুদ্রের বাকি মাছেদের থেকে অনেক দ্রুত গতিতে সাঁতার কাটতে পারে। সাধারণত টুনা ফিশ তৈরি হয় এই মাছ দিয়ে। প্রচুর দাম এই মাছের। গভীর জলে থাকার জন্য এদের কখনই ধ’রা যায় না।

মনে করা হচ্ছে ভূমিকম্পের জন্যই সমুদ্রের ঢেউতে ডাঙার কাছাকাছি এসে মৃ’ত্যু হয় এই মাছের। তবে এভাবে গভীর জলের মাছ ডাঙায় চলে আসায় চিন্তিত বিশেষজ্ঞরা।

Author: Rijvi Ahmed

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *